পাহাড়ে ইতিহাসের প্রথম অ্যাডভেঞ্চার উৎসব

fec-image

চট্টগ্রামে পাহাড়ের ইতিহাসের প্রথম অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়া  উৎসব অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ মাউন্টেইন বাইকিং, কায়াকিং, ক্যানিওনিং, কেভ ডিসকভারি, হাইকিং, ট্রেইল রান,  রোপ কোর্স, টিম বিল্ডিং, টি ট্রেইল হাইকিং, সেইলিং বোটসহ বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়া।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনুল ইসলাম বলেছেন, অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়ার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে। অ্যাডভেঞ্চার উৎসবের মাধ্যমে দেশের অ্যাডভেঞ্চার পর্যটন শিল্পের সম্ভাবনা প্রসারিত ও বিকশিত হবে। পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে বিগত দুই তিন দশক ধরে প্রতি বছর এ ধরণের অ্যাডভেঞ্চার উৎসব অনুষ্ঠিত হলেও বাংলাদেশে জাতীয়ভাবে এটিই হবে প্রথম।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) সকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় অ্যাডভেঞ্চার উৎসব উপলক্ষে বোর্ডের কর্ণফুলী সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতীয় অ্যাডভেঞ্চার উৎসব বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মত অ্যাডভেঞ্চার উৎসব পালিত হবে। এই উৎসবে অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস কার্যক্রমের মাধ্যমে শিক্ষা অর্জন, পর্যটন খাতের অগ্রগতি, অ্যাডভেঞ্চার অথবা সাহসিক ক্রীড়ার মাধ্যমে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, টেকসই পর্যটনের উন্নয়নে এবং বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব কমিয়ে আনতে উৎসাহিত করবে।

এতে মোট ১০০ জন অ্যাডভেঞ্চারকে মনোনীত করা হয়েছে। পার্বত্য এলাকা থেকে ৩১ জন। দেশের অন্যান্য এলাকা থেকে ৫৩ জন এবং ১৬ জন বিদেশি অ্যাডভেঞ্চার অংশগ্রহণ করবেন। এর মধ্যে ২৭ জন মহিলা অ্যাডভেঞ্চার অংশগ্রহণসহ বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চার ইভেন্ট পরিচালনার জন্য মোট ১৬ জন বিদেশি প্রশিক্ষক উৎসবে যোগ দিবেন বলেও তিনি জানান।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য প্রশাসন ও উৎসব আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব আশীষ কুমার বড়ুয়া, সদস্য পরিকল্পনা ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, সদস্য বাস্তবায়ন মো. হারুন অর রশিদ ও বাংলাদেশ অ্যাডভেঞ্চার ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মশিউর রহমান প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − ten =

আরও পড়ুন