পাহাড়ে সহিংস হামলার বিচার হয় না বলে পাহাড়িদের ওপর অবাধে হচ্ছে সাম্প্রদায়িক হামলা- সিএইচটি কমিশন

Capture

স্টাফ রিপোর্টার:

মানবাধিকার সংস্থা পার্বত্য চট্টগ্রাম (সিএইচটি) কমিশন বলেছে, পাহাড়ে সহিংস হামলার বিচার হয় না বলে সেখানে পাহাড়িদের ওপর অবাধে হচ্ছে সাম্প্রদায়িক হামলা। উপরন্তু সম্প্রতি রাঙামাটিতে মেডিক্যাল কলেজ স্থাপনের প্রশ্নে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কর্মসূচিতে ছাত্রলীগের বাধাদানকে দ্রুত রূপ দেওয়া হয়েছে সাম্প্রদায়িক হামলায়।

শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সিএইচটি কমিশনের নেতারা এসব কথা বলেন। উপস্থিতি ছিলেন কমিশনের কো-চেয়ার অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, কমিশন সদস্য ব্যরিস্টার সারা হোসেন, ড. ইফতেখারুজ্জামান। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ড. স্বপন আদনান।

সংবাদ সম্মেলনে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, পার্বত্য চট্টগ্রামের সহিংস ঘটনাসমূহের নিরপেক্ষ তদন্ত ও দোষিদের ন্যায়-বিচারের মুখোমুখি করার দৃষ্টান্ত একান্তই বিরল। বরং পাহাড়িদের মৌলিক অধিকার হরণের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর যোগসাজশের অভিযোগের ব্যাপারে কোন নিরপেক্ষ তদন্ত হয়নি। এসব ঘটনার যথাযথ প্রতিকারও হয়নি। ফলে পাহাড়িদের ওপর অবাধে সাম্প্রদায়িক আক্রমণ ঘটে চলেছে।

এতে আরো বলা হয়, রাঙামাটিতেও সম্প্রতি মেডিক্যাল কলেজ উদ্বোধনের পক্ষ-বিপক্ষ গ্রুপ হিসেবে ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গসংগঠন ছাত্রলীগ ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের মতবিরোধকে কেন্দ্র করে উদ্ভুত পরিস্থিতিকে অতি দ্রুত পাহাড়ি-বাঙালির সাম্প্রদায়িক বিরোধে রূপান্তরিত করা হয়েছে। রাঙামাটির সহিংস ঘটনা প্রমাণ করেছে পাহাড়িদের প্রতিবাদী কর্মসূচিতে প্রশাসন ও উগ্রপন্থীরা সহিংস হামলা চালাচ্ছে। ফলে তারা নির্ভয়ে কোনো কর্মসূচি পালন করতে পারছে না।

সংবাদ সম্মেলনে সুনির্দিষ্ট সময়সীমায় শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন, মেডিক্যাল কলেজ স্থাপনসহ উন্নয়নমূলক কর্মসূচিতে আঞ্চলিক পরিষদের সঙ্গে মতৈক্যে পৌঁছানো, ভূমি কমিশন আইন সংশোধন করে ভূমির বিরোধ নিস্পত্তি, জনবসতিপূর্ণ এলাকায় ভূমি অধিগ্রহণ বন্ধ, বাবুছড়া ও বগছড়ির ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে পুনর্বাসনসহ আট দফা দাবি উত্থাপন করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − eight =

আরও পড়ুন