পুলিশকে পিটিয়ে আসামী কেড়ে নিল কাউখালীর ছাত্রলীগ ও যুবলীগ ॥ দুই কর্মকর্তা গুরুতর জখম

28051227

আলমগীর মানিক,রাঙামাটি:
রাঙ্গামাটির কাউখালীতে জুয়ার আসর থেকে আসামী গ্রেফতার করে থানায় আনার পথে পুলিশকে বেধড়ক পিটিয়ে আসামী ছিনিয়ে নিয়ে গেছে জুয়াড়িরা। হামলার সাথে জড়িত সকলেই ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মী বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। এসময় জুয়াড়িদের হামলায় কাউখালী থানার দুই কর্মকর্তা গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সুগারমিল আদর্শগ্রাম এলাকায় এঘটনা ঘটে।
কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল কান্তি বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। থানায় মামলা হয়েছে।
পুলিশ জানায়, জনৈক মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ১২টায় কাউখালী থানার এস.আই মোঃ কাউছার ও এ.এস.আই মোঃ কামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নের সুগারমিল আদর্শগ্রাম এলাকায় আওয়ালীগ নেতা নান্না মেম্বারের দোকানে হানা দেয়। এসময় জুয়ার আসর থেকে ওবাইদুল হক (৫০), ফিরোজ সওদাগর (৪৫), ক্যজহলা মারমা (৪০), নাছির ড্রাইভার ও ইসলাম ড্রাইভারকে আটক করে থানায় নিয়ে যাচ্ছিল। হাতে হ্যান্ডকাপ পড়িয়ে আসামীদের থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় আসামী ওবাইদুল হকের ছেলে যুবলীগ নেতা মাসুদ ও মনির, ফিরোজ সওদাগরের ভাতিজা লায়েক ও কলমপতি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শিহাবের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একটি দল পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এলোপাতাড়ি লাঠি সোটা ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে ৪ আসামীকে হ্যান্ডকাপসহ পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এসময় হামলাকারীদের আঘাতে কাউখালী থানার এস.আই মোঃ কাউছার (৩২), এ.এস.আই মোঃ কামাল উদ্দিন (৪৫) গুরুত্বর আহত হয়। তাদেরকে কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। একই আসামীরা গত কয়েক বছর আগে কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যাম কান্তি বড়–য়ার উপর হামলা চালিয়ে তাকেও আহত করেছিল।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান- হামলাকারীরা সকলে ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সাথে জড়িত।

মদ জুয়ার আখড়া হিসাবে খ্যাত কাউখালী উপজেলার অন্যতম সুগারমিল আদর্শগ্রাম এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ প্রকাশ্যে মদ জুয়ার আসর বসিয়ে এলাকার যুব সমাজকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। মদ জুয়া বন্ধে বারবার পুলিশের সহায়তা চাওয়া হলেও একটি প্রভাবশালী মহলের চাপের মুখে পুলিশ নতি স্বীকার করতে বাধ্য হয়।
কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল কান্তি বড়ুয়া জানান, থানায় মামলা হয়েছে। হামলাকারীরা যেই হোক আইনের উর্দ্ধে নয়। তদন্ত স্বাপেক্ষে পুলিশের উপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।]

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten + fifteen =

আরও পড়ুন