পেকুয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে দুই সন্তানের জননীর মৃত্যুু

fec-image

কক্সবাজারের পেকুয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে জন্নাতুল ফেরদৌস (২৫) নামের এক দিনমজুরের স্ত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দিবাগত রাত ১১টায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মছইন্যাকাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধূ ওই এলাকার কলিম উদ্দিনের স্ত্রী এবং দুই সন্তানের জননী।

মছইন্যাকাটার স্থানীয় সমাজ কমিটির সভাপতি আবদুল আনচারি জানান, বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাত ১১টার দিকে কলিম উদ্দিনের সন্তানরা মহল্লার স্টেশনে এসে তাদের বাবাকে খবর দেয় তাদের মা গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মাটিতে পড়ে আছে। কলিম উদ্দিন দ্রুত বাড়িতে গিয়ে সন্তানদের তথ্যমতে তার স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে। কলিম উদ্দিনসহ স্থানীয়রা তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। পরে হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। কী কারণে তার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত করা যাচ্ছেনা। তবে জান্নাতুল ফেরদৌস মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানান প্রতিবেশীরা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য নাছির উদ্দীন জানান, রাত সাড়ে ১১দিকে কলিম উদ্দিনের স্ত্রী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করছে। তখন কলিম উদ্দিনসহ স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া হাসপাতালে নিয়ে আসে, হাসপাতালে আনার আগেই কলিম উদ্দিনের স্ত্রীর মৃত্যু হয়।

পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মুজিবুর রহমান জানান, জান্নাতুল ফেরদৌস নামে এক নারীর নিথর দেহ রাত ১২টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে আসে, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃতদেহ দেখে ফাঁসিতে তার মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পরিবারের লোকজন জানান। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই নিশ্চিত হওয়া যাবে আত্মহত্যা নাকি অন্য কিছু। এ বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে।

 

 

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা, কক্সবাজার, পেকুয়া
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন