স্ত্রীর ভাইয়ের পিটুনির অপমান সহ্য করতে না পেরে

পেকুয়ায় চিরকুট লিখে এক যুবকের আত্মহত্যা

fec-image

কক্সবাজারের পেকুয়ায় চিরকুট লিখে মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম (২৭) নামের এক যুবক আত্নহত্যা করেছে। নিজের স্ত্রীর ভাইয়ের পিটুনির অপমান সহ্য করতে না পেরে ঘরে ফাঁসিতে ঝুলে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর জন্য দায়ী কারা এ ধরণের চিরকুট লিখে গিয়েছেন আগেই।

১৪ জুন (মঙ্গলবার) বিকাল ৩ টার দিকে উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড মহুরীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সে ওই এলাকার মৃত মঞ্জুর আলমের ছেলে এবং ৭ মাস বয়সের এক ছেলে সন্তানের জনক।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পারিবারিকভাবে তার সাথে গত দুই বছর আগে রাজাখালী ইউনিয়নের বখশিয়াঘোনা এলাকার নুর ছিদ্দিকের ছোট বোনের সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকতো। সে পেশায় একজন ব্যাটারি চালিত টমটম অটোরিকশা চালক। সে টমটম অটোরিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন।

গত ১৩ জুন শহিদুল ইসলাম তার স্ত্রীকে মারধর করছে এমন সংবাদ পেয়ে তার স্ত্রীর বড় ভাই নুর ছিদ্দিক শহিদুল ইসলামের বাড়িতে এসে শহিদকে মারধর করে তার বোন কে নিয়ে যায়। পরে শহিদ অপমানে সহ্য করতে না পেরে তার ঘরের নিজ শয়ন কক্ষের তীরের সাথে গলায় রশি পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

ঘটনার দিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘরের দরজা না খুললে পাশের লোকজন গিয়ে দরজা ভেঙে ভিতরে গিয়ে দেখতে পায় সে রশি গলায় পেচিয়ে ঘরের তীরের সাথে ঝুলছে। পরে থানা পুলিশকে খবর দিলে পেকুয়া থানার এস আই হেবজুর রহমান সঙ্গীফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ফরহাদ আলী লাশ উদ্ধারের সত্যতা জানিয়ে বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে। তবে আত্মহত্যার সঠিক কারণ খুঁজে পাইনি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে আত্মহত্যার কারণ বলা যাবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা, পেকুয়া, যুবক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one + eighteen =

আরও পড়ুন