পেকুয়ায় বেহুন্দি জাল বসিয়ে চলছে পোনা নিধনের মহোৎসব

fec-image

মাছ ধরার জালের নাম নেট-বেহুন্দি। কক্সবাজারের পেকুয়ার উপকূলীয় বিভিন্ন জলসীমার দেশি মাছের পোনার আবাসস্থলে বেহুন্দি জাল বসিয়ে নির্বিচারে মাছের পোনা নিধন চলছে। এতে দেশি প্রজাতির মাছের বংশবিস্তার হুমকির মুখে পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন জেলে ও সাধারণ মানুষ।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বঙ্গোপসাগরের মোহনা পেকুয়ার মগনামা কুতুবদিয়া চ্যানেলের মগনামা লঞ্চ ঘাট, উজানটিয়া টেকপাড়া বেড়িবাঁধ সংলগ্ন, পেরাসিঙ্গা পাড়া, করিমদাদ মিয়া ঘাট, রাজাখালী সুন্দরীপাড়া, আরবশাহ বাজারের পশ্চিমসহ বিভিন্ন পয়েন্টে কয়েক লাখ বেহুন্দি জাল বসিয়ে অবৈধভাবে নানা প্রজাতির মাছের রেনু পোনা আহরণ করছে। পরে বাগদা ও গলদা চিংড়ির পোনা বাছাই করে নিয়ে বাকি মাছের পোনা মাটিতে ফেলে দিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে এক অসাধু চক্র।

এছাড়া ফিশিং ট্রলার ও ছোট বোট এবং নৌকা দিয়ে প্রতিনিয়ত মাছ আহরণ করা হচ্ছে। মাছের প্রজন্মের সময় টানা মৎস্য অধিদপ্তরের চলমান ৬৫ দিন বিধিনিষেধ থাকলেও এ নিষেধাজ্ঞা যথাযথভাবে পালন করা হচ্ছে না পেকুয়ায়। কারেন্ট জাল, বেহুন্দি জাল দিয়ে মাছ আহরণ করছে মৎস্য আহরণকারীরা। এসব রেণুপোনা আহরণের পর বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে বিক্রি করা হয়। নিষেধাজ্ঞা জারির পর কোস্ট গার্ডের সদস্যরা সাগরে অভিযান পরিচালনা করে কয়েকটি ট্রলার ও মাছ এবং জাল জব্দ করে তা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আনোয়ারুল আমিনের মুঠোফোনে সংযোগ না পাওয়াই এ বিষয়ে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বদরুজ্জামান বলেন, আমরা নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছি, পেকুয়ার অফিসারকে নির্দেশনা দিয়েছি অভিযান করতে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পেকুয়া, পোনা নিধন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − 9 =

আরও পড়ুন