পেকুয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার করছে যুবকরা

fec-image

কক্সবাজারের পেকুয়ায় অস্বাভাবিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত চলাচল অনুপযোগী রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে স্থানীয় যুবকরা। স্বেচ্ছাশ্রমেই ওই রাস্তা সংস্কার করেছে তারা।

শুক্রবার (২৪ জুন) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকার বাসিন্দা এড রাশেদ, জাকের হোসেন, বদি আলম, ইসমাঈল, মোতালেব, হারুন, আব্দু রশিদ, বেলাল, আকবর ফকির, মাহবুব আলমসহ ১৫-২০ জন তরুণ-যুবক মিলে রাস্তা মেরামতের কাজ করছেন। ওই যুবকরা তাদের নিজস্ব অর্থায়নে ইট, বালি আর কংক্রিট ক্রয় করে এনে তাদের স্বেচ্ছায় চলাচলের উপযোগী করতে সংস্কার করেছে।

জানা গেছে, গত কয়েক বছর ধরে সড়কটি বড় বড় গর্ত হওয়ার চলার অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মগকাটা সংলগ্ন সড়কটির একাধিক অংশে মাটি ধসে গিয়ে রাস্তা ভেঙে যায়। ফলে এমন পরিস্থিতিতে চলাচল বন্ধ হয়ে ওই এলাকার মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েন।

স্থানীয়রা বলেন, সড়কটি উপজেলার প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র আলহাজ্ব কবির আহমদ চৌধুরী (পেকুয়া) বাজার, পেকুয়া শহীদ জিয়াউর উপকূলীয় কলেজ, বিএমআই ইনস্টিটিউট, পেকুয়া মডেল সরকারি জি. এম. সি ইনস্টিটিশন, পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পেকুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, আশরাফুল উলুম ইসলামিয়া মাদ্রাসা, আনোয়ারুল উলুম ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা, হেদায়তুল উলুম ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা, জালিয়াখালী হাসেমুল উলুম ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা ও বিভিন্ন কিন্ডারগার্টেন পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী ও ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষের চলাচলের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। সড়কের অবস্থা খাপার হওয়ার কারণে উপায় না পেয়ে স্থানীয় যুবকরা সড়কটি মেরামতের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

তারা আরও বলেন, এক সময় প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল যাতায়াত করত। কিন্তু সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় এসব যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এদিকে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়কটি মেরামত হওয়ায় যাতায়াত স্বাভাবিক হবে । তবে সরকারি উদ্যোগে স্থায়ীভাবে মেরামত করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

সিএনজি চালক মো. জসিম উদ্দিন জানান, সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর থেকে ওই সড়ক দিয়ে যে কোন গাড়ি চালানো সম্ভব হয়নি। এতে করে তাদের আয় রোজগার কমে গেছে। এখন রাস্তা মেরামতের কারণে ব্যবসায়ে গতি আসবে।

বদি আলম বলেন, রাস্তাটির বেহাল দশা দেখে অবশেষে তরুণ আইনজীবী এড. রাশেদুল কবিরের নির্দেশনা ও অর্থিক সহায়তায় আমরা স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত কাজ শুরু করেছি। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে স্থায়ীভাবে মেরামতের জোর দাবি জানাচ্ছি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পেকুয়া, রাস্তা সংস্কার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − 1 =

আরও পড়ুন