মানিকছড়িতে অর্ধশত ছিন্নমুল পরিবার

প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয় কেন্দ্রে নতুন মাত্রায় উপভোগ করলেন ঈদ আনন্দ

fec-image

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে দেশব্যাপী গৃহ ও ভূমিহীন পরিবারে ভূমিসহ গৃহ নির্মাণ করে ছিন্নমুল পরিবারে সুখের পরশ বিলিয়ে দিয়ে নজির সৃষ্টি করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফলে এবারের ঈদে মানিকছড়ির অর্ধশত পরিবারে নতুন মাত্রায় ঈদ আনন্দ উপভোগ করেছে নতুন ঠিকানায় ঠাঁই পাওয়া পরিবারগুলো।

সরজমিন ঘুরে, উপজেলার ১নং ইউনিয়ন পরিষদের পূর্ব এয়াতলংপাড়া ও বড়ডলু স্কুল টিলা সংলগ্ন সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত টিলায় সরকারি অর্থায়নে তৈরি করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু ভিলেজ’ ও ‘মুজিববর্ষ ভিলেজ’ আশ্রয় কেন্দ্র। বঙ্গবন্ধু ভিলেজে ৩৫ পরিবার এবং মজিববর্ষ ভিলেজে ১৫ পরিবারের জন্য নির্মিত দু’কক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা ঘরে রয়েছে কিচেন ও স্যানিটারী সুবিধা। প্রতি ঘরে সরকারের ব্যয় হয়েছে এক লক্ষ একাত্তর হাজার টাকা।

এছাড়া বিশুদ্ধ পানীয় জলের সুবিধা দিয়ে গত ৫ ডিসেম্বর-২০২০ ঘরগুলো উদ্বোধন করা হলেও রোজার শুরুতে ঘরগুলোতে ধীরে ধীরে উপকারভোগীরা ঠাঁই নিতে থাকেন। ইতোমধ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্পের আশ্রয় কেন্দ্রের বঙ্গবন্ধু ভিলেজে বিশুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহে গভীর নলকুপ বসানো হয়েছে। মুজিববর্ষ ভিলেজে এখনো পানির সুবিধা নিশ্চিত করা যায়নি। ফলে ওখানে ১৫ পরিবারের মধ্যে একমাত্র আশ্রিত নুর বানু বলেন, পানির সুবিধা না থাকায় ছিন্নমুল পরিবারগুলো ঘর পেয়েও সুবিধাভোগ করতে পারছে না।

অপরদিকে বঙ্গবন্ধু ভিলেজে আশ্রিত ৩৫ পরিবার সকলে নতুন ঠিকানায় ঈদ আনন্দ কাটিয়েছে। ১৭ মে সোমবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু ভিলেজে গেলে উপকারভোগী সাহিদা বেগম জানান, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশের ছিন্নমুল পরিবারে পরশ বুলিয়ে দিতে আশ্রয়ণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। আমাদের নিজস্ব জায়গা, ঘর বলতে কিছুই ছিল না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহানুভূতি ও মহানুভবতায় আজ ছিন্নমুল পরিবারে মহানন্দ বিরাজ করছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামান্না মাহমুদ বলেন, উপজেলার দুইটি আশ্রয় কেন্দ্রে ৫০টি ছিন্নমুল পরিবারের বাসস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে। এ ধরণের ছিন্নমুল আরো অর্ধশত পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten − 6 =

আরও পড়ুন