প্রাণে বাঁচতে মঠ ছেড়ে পালাচ্ছেন ভিক্ষুরাও

fec-image

সামরিক বাহিনী ও বিরোধী বাহিনীগুলোর মধ্যে সংঘাত থেকে বাঁচতে পূর্ব মিয়ানমারের দুটি বড় শহর থেকে শত শত বৌদ্ধ ভিক্ষু পালিয়ে গেছেন। সম্প্রতি লড়াই থেকে বাঁচতে এসব ভিক্ষুসহ হাজার হাজার মানুষ পালিয়ে গেছে।

পূর্ব মিয়ানমারের লোইকাও শহরে গত সপ্তাহে তীব্র লড়াই হয়। জাতিসংঘের হিসাবে এতে প্রায় ৯০ হাজার লোক বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে। স্থানীয় এনজিওগুলো বলছে এ সংখ্যা আরো অনেক বেশি; এক লাখ ৭০ হাজারের মতো হবে।

জাতিসংঘ বলছে, লোইকাও শহরের অর্ধেক মানুষ সহিংসতার কারণে বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

এক বৌদ্ধ ভিক্ষু বলেন, ‘এখানে থাকা আমাদের জন্য অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। এলাকা ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত আমাদের জন্য কঠিন ছিল। কিন্তু আমরা তা করতে বাধ্য হয়েছি।’

ভিক্ষুদের এলাকা ছেড়ে পালানো মিয়ানমারের জন্য অস্বাভাবিক। কারণ দেশটিতে তাঁরা সম্মানিত হিসেবে বিবেচিত। আর মন্দিরগুলোকেও নিরাপদ জায়গা হিসেবেই মনে করা হয়।

শান রাজ্যে পালিয়ে যাওয়া পাঁচ হাজার বাস্তুচ্যুতর অন্যতম ওই সন্ন্যাসী জানান, লোইকাও শহর ও আশপাশের ৩০টি মঠ থেকে ভিক্ষুরা পালিয়ে গেছেন। কাছের দেমোসো শহরেরও ১২টি মঠ খালি হয়ে গেছে। লোইকাওয়ের বিদ্রোহীরা গির্জা, ঘরবাড়ি দখল করে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন একজন পুলিশ সদস্য। তিনি আরো জানিয়েছেন, বিদ্রোহীরা একটি কারাগারেও আক্রমণ করে।

সূত্র : এএফপি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × four =

আরও পড়ুন