প্রাথমিকের নিয়োগবিধি সংশোধনের দাবিতে মাটিরাঙায় স্মারকলিপি

fec-image

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের গেজেটেড অফিসার ও নন-গেজেটেড কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা-২০২১’ প্রনয়নকে প্রাথমিক শিক্ষাক্ষেত্রে মাইলফলক উল্লেখ করে এতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতির বিধান যুক্ত না করায় তা সংশোধনের দাবি জানানো হয়েছে। স্মারকলিপিতে চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের স্থায়ী পদোন্নতি প্রদানেরও দাবি জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মাটিরাঙা উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির নেতৃ্বৃন্দ মাটিরাঙ্গা উপজেলার শিক্ষা অফিসারদের মাধ্যমে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবের প্রদত্ত স্মারকলিপিতে এসব দাবি জানিয়েছে প্রধান শিক্ষকরা।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, ২০১৪ সালের ৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদেরকে দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড পদমর্যাদা প্রদান করলেও তা এখনও বাস্তবায়ন না হওয়ায় ১০ম গ্রেডসহ দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড পদমর্যাদার সুফল ভোগ করতে পারছেন না প্রধান শিক্ষকরা। আবার দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত হওয়ায় প্রধান শিক্ষকরা তাদের বকেয়া টাইমস্কেলও পাচ্ছেন না বলে স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ১৯৯৪ সালের ১৯ ডিসেম্বর এক সংশোধনী গেজেট প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি বন্ধ করা হয়। যা প্রধান শিক্ষকদের কাছে একটি ‘কালো আইন’ নামে পরিচিত। ফলে প্রধান শিক্ষক পদটি দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে ‘ব্লক পোস্ট’ হিসেবে রয়েছে।

স্মারকলিপি প্রদানকালে মাটিরাঙা উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও তপ্ত মাস্টার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহিন আক্তার, মাটিরাঙা উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও মাটারাঙা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আব্দুল মালেক, নতুনপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কীর্তি ত্রিপুরা, বাইল্যাছড়ি মুসলিমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রীতি বালা ত্রিপুরা ও পুর্ব ধলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মালেকা পারভীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four − 2 =

আরও পড়ুন