প্রয়োজনে মিয়ানমার সীমান্তে গুলি চালানো হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

fec-image

অবৈধ অস্ত্র, মাদক ও মানবপাচার রোধে প্রয়োজনে মিয়ানমার সীমান্তে গুলি চালানো হবে বলে জানিয়েছেন  পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভারত সরকারের দেওয়া দুটি অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘সীমান্তে হত্যা বন্ধে বাংলাদেশ খুবই আন্তরিক। মিয়ানমার ও বাংলাদেশ সীমান্তে কখনও গুলি না চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এই সীমান্তে দিন দিন অপরাধ বাড়ছে।’

আবদুল মোমেন আরও বলেন, ‘আমরা সীমান্তে কাউকে মারি না। বাংলাদেশ-ভারত নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সীমান্তে আর একটি লোকও মরবে না।’

মিয়ানমার সীমান্তে গুলি চালানোর সিদ্ধান্ত হলেও এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভালো বলতে পারবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এই সীমান্তটি খুবই ‘ডিফিকাল্ট’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘যে ছেলেটা মারা গেছে সে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে কাজ করছিল। সে রোহিঙ্গাদের বোঝানোর চেষ্টা করছিল, এখানে নয়, তাদের সুন্দর ভবিষ্যৎ তাদের দেশেই। তাই তাদের রাখাইনে ফিরে যেতে হবে। এই আন্দোলন করতে গিয়েই তাকে প্রাণ দিতে হয়েছে। আমরা চাই সঠিক তদন্তে মুহিবুল্লাহ হত্যার রহস্য উন্মোচন ও হত্যাকারী চিহ্নিত হোক। হত্যাকারীদের শাস্তি হোক।’

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × two =

আরও পড়ুন