ফের প্রাণ ফিরে পেল কুতুবদিয়ার সিটিজেন পার্ক

fec-image

বিনোদন বঞ্চিত দ্বীপ কুতুবদিয়ায় পর্যটনে ৪ বছর আগে গৃহীত মেগা প্রকল্পটি আবার যেন প্রাণ ফিরে পাচ্ছে। বিশাল সমুদ্র সৈকত থাকলেও সেখানে বেড়াতে আসা পর্যটক বা স্থানীয় ভ্রমণ পিপাসুদের ছিলনা কোন সুবিধা। বিশেষ করে শিশুদের জন্য বিনোদনের কোন ব্যবস্থাই নেই। এমন পরিস্থিতির মাঝে প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় এনে সরকারি ও বেসরকারি কিছু অনুদানে হাতে নেয়া হয় মেগা প্রকল্প। সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা সুজন চৌধুরী এ উদ্যোগটি নিয়েছিলেন। থানার পাশেই গড়ে তোলেন বিভিন্ন প্রাণীর ম্যুরাল স্থাপনের কাজ। একই সাথে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সৌন্দয বৃদ্ধির কাজও করা হয়। বাকি কিছুটা করা হয় সমুদ্র সৈকতে।

তবে আথিক সংকটের দরুণ প্রকল্পটি থেমে যায়। পরিত্যক্ত আর অযত্নে প্রানীর ম্যুরাল ভাঙতে শুরু করে। অসমাপ্ত কাজটি আর এগোয়নি দীর্ঘদিন।

স্থানীয় বাসিন্দা মনোয়ারা বেগম বলেন, শুক্রবার এলে বাচ্চাদের নিয়ে বায়ুবিদ্যুৎ এলাকায় ঘুরে আসি। শিশুরা সব সময় একই জায়গায় যেতে চায়না। সিটিজেন পার্কটি প্রথমে আর্কষন বাড়ালেও আস্তে আস্তে এটি সংস্কার বিহীন হওয়ায় জৌলুস হারিয়ে ফেলেছে। এটি আবার নতুন রং পেলে শিশুরা নিয়মিত বেড়ানো বা বিনোদনের একটা আবাস খুঁজে পাবে বলে তিনি মনে করেন।

সিটিজেন পার্কে ম্যুরাল তৈরির কারিগর স্থানীয় ভাস্কর মাহাবুব বলেন, তিনি আগের কাজের বিলও কিছু পাবেন। আর্থিক সংকটে পুরো কাজ শেষ করতে পারেননি সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা। সুষ্ঠু বিনোদনের অভাব পরিলক্ষিত হওয়ায় কুতুবদিয়া-মহেশখালীর সংসদ সদস্য আলহাজ আশেক উল্লাহ রফিক পুণরায় একটা বরাদ্দ দিয়েছেন সিটিজেন পার্কের সৌন্দর্য বৃদ্ধি সহ ক্ষতিগ্রস্ত ম্যুরাল নির্মাণে। আগামী ঈদের আগেই প্রয়োজনীয় রং এর কাজ শেষ হবে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুতুবদিয়া, সিটিজেন পার্ক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − 8 =

আরও পড়ুন