বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’, বাংলাদেশে আঘাত হানার শঙ্কা

fec-image

টানা তিন দিন তাপপ্রবাহের কারণে নতুন করে দেশের পাঁচ বিভাগের ওপর দুই দিনের সতর্কবার্তা দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এই তাপপ্রবাহ শেষে ২১ মে’র পর সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির বার্তাও দিয়েছে সংস্থাটি, যা পরে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়টি পূর্ণ রূপ নিলে এর নাম হবে ‘রেমাল’। ওমানের দেওয়া এই আরবি নামের অর্থ ‘বালু’।

ভারতের আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, মে মাসে বঙ্গোপসাগরে দুটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। ২০ মে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে তৈরি হতে পারে ঘূর্ণাবর্ত। এরপর সেটি ক্রমে শক্তি বাড়িয়ে ২৪ মে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। পরদিন সন্ধ্যার পর তা পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে।

১ এপ্রিল থেকে দেশে শুরু হওয়া তাপপ্রবাহ ছিল ৫ মে পর্যন্ত। এর মধ্যে ২ মে বৃষ্টি হলেও দেশের পশ্চিমাঞ্চলে তাপ প্রশমিত হয়েছে ৫ মে’র বৃষ্টির পর। নতুন করে তিন দিন ধরে দেশের বেশিরভাগ এলাকায় তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। গতকাল (বুধবার) দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল দিনাজপুরে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় ছিল ৩৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এর আগে, চলতি মে’র শুরুর দিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছিল, এ মাসে তাপপ্রবাহ, বৃষ্টি, নিম্নচাপ, ঘূর্ণিঝড় ও কালবৈশাখী সবকিছুরই সম্ভাবনা রয়েছে। তবে, তাপপ্রবাহ এপ্রিলের মতো অবস্থায় যাবে না। এ মাসে এত দীর্ঘ সময় ধরে তাপপ্রবাহ থাকবে না। তাপমাত্রা এপ্রিলের চেয়ে কিছুটা কম থাকবে।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, এ মাসে দিনের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকবে। স্বাভাবিক বৃষ্টিই হতে পারে। দেশের কোথাও কোথাও কয়েকটি তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আবহাওয়ার খবর, ঘূর্ণিঝড়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন