বনবিভাগের অভিযানে অর্ধশত অবৈধ বসতি উচ্ছেদ

fec-image

কক্সবাজারের উত্তর বনবিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের অধিনস্থ ফুলছড়ি বনবিটের আওতাধীন জুমনগর এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে। এসময় বনবিভাগের জায়গায় অবৈধভাবে নির্মিত অর্ধশত ঘর উচ্ছেদ করে অন্তত ৫ একর পরিমাণ বনভূমির জায়গা অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে দখলমুক্ত করা হয়। সোমবার (২৮মার্চ) সকাল ১১টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়।

চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভীর হোসেন এবং সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) সোহেল রানা নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযান সূত্রে জানাগেছে, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ফুলছড়ি রেঞ্জের ফুলছড়ি বনবিটের জুমনগর জায়গায় বিপুল পরিমাণ বনভূমি দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ করেন কতিপয় ভূমিদস্যু চক্র। বনবিভাগের জায়গায় অবৈধ বসতি ও স্থাপনা তৈরির সংবাদ পেয়ে কক্সবাজার বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) তহিদুল ইসলামের নির্দেশনায় সোমবার সকালে অভিযানে নামে বন বিভাগের একদল বনকর্মী। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভীর হোসেন এবং সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) সোহেল রানা নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে ফুলছড়ি বনবিটের এলাকা থেকে গড়ে তোলা বিপুল সংখ্যক মাটির তৈরি টিনের ঘর, বাঁশের তৈরি অন্তত অর্ধশত ঝুপড়ি ঘর উচ্ছেদ করে গুড়িয়ে দেয়া হয়। এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে প্রায় ৫ একর বনভূমির জায়গা অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে উদ্ধার করে দখলমুক্ত করা হয়। উচ্ছেদ অভিযানে সময় অবৈধ দখলদারেরা অভিযানের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যাওয়ার কারণে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

বনবিভাগের উচ্ছেদ অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন, মেহেরঘোনা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মামুন মিয়া ,বাঘখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. সরওয়ার, ফুলছড়ি বনবিট কর্মকর্তা, ঈদগাঁও বনবিট কর্মকর্তা, ঈদগড় বনবিট কর্মকর্তা, নাপিতখালী বনবিট কর্মকর্তা, পিএমখালী বনবিট কর্মকর্তা, রাজঘাট বনবিট কর্মকর্তা, খুটাখালী বনবিট কর্মকর্তা, মেধাকচ্ছপিয়া বনবিট কর্মকর্তা, ডুলাহাজারা বনবিট কর্মকর্তা,ফাঁসিখালী বনবিট কর্মকর্তা, নলবিলা বনবিট কর্মকর্তা, কাকারা বনবিট কর্মকর্তা, সুরাজপুর মানিকপুর বনবিট কর্মকর্তাসহ মেহেরঘোনা রেঞ্জ ও বাঘখালী রেঞ্জের অফিস স্টাফ, হেডম্যান, শতাধিক ভিলেজার, চকরিয়া ভূমি অফিসের স্টাফ ও চকরিয়া থানার এসআই মাঈন উদ্দিনসহ সঙ্গীয় নারী-পুরুষ মিলে বেশকিছু পুলিশ সদস্য, সিপিজি সদস্যরা অভিযানে উপস্থিত ছিলেন।

অভিযানের বিষয়ে ফাঁসিয়াখালী ও ফুলছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম বলেন,
কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ফুলছড়ি রেঞ্জের অধিনস্থ ফুলছড়ি বিটের জুমনগর বনভূমির জায়গায় একদল ভূমিদস্যু চক্র অবৈধ দখলদার হিসেবে মাটির ঘর ও বাঁশের তৈরি ঝুপড়ি ঘর নির্মাণ করে বসতি গড়ে তোলেন। সোমবার সকাল থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) নির্দেশনায় বনবিভাগের কর্মী ও উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে গড়ে তোলা বিভিন্ন বসতি ও স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে দখল উচ্ছেদ করা হয়। অবৈধ দখলদারকে বনবিভাগের জায়গা থেকে উচ্ছেদ করে বনবিভাগের প্রায় ৫ একর মতো জায়গা দখল উচ্ছেদ করে বনবিভাগের নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। এনিয়ে বনবিভাগের সংশ্লিষ্ট আইনে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 + nine =

আরও পড়ুন