বাইশারীতে মানবেতর জীবন কাটছে সিএনজি চালকদের  

fec-image

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে দীর্ঘ  এক মাস পার হতে চলছে। বাইশারী -ইদগড় -ঈদগাও সড়ক ও বাইশারী-গর্জনিয়া সড়কে চলাচলকারী সিএনজি, অটোরিকশা, টমটম বন্দ হয়ে যাওয়ার পর অচল হয়ে পড়েছে প্রায় শতাধিক চালকেরা। বেকার হয়ে এখন মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে জানালেন লাইন ম্যান শহিদুল্লাহ।

তিনি বলেন শতাধিক সিএনজি চালকের পরিবারের সদস্য সংখ্যা কয়েক শতাধিক। পবিত্র মাহে রমজানে ছেলে মেয়েদের কান্না ও আহজারিতে চালকেরা ও কান্নাকাটি করছেন। গাড়ি না চালালেও কোন কর্মও খুঁজে পাচ্ছেন না তারা।

সরেজমিনে সিএনজি চালক বাদশাহ মিয়া, মো. ইউছুপ‘সহ অনেকের সাথে কথা বলতে গিয়ে দেখা যায়, তাদের চোখে মুখে হতাশার চাপ। এদের অনেকেই বলেন কেউ সিএনজি চালাতেন ভাড়ায় আর কেউ নিজের ব্যক্তিগত গাড়ি। অনেকে আবার মাসিক কিস্তিতে বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নিয়ে গাড়ি ক্রয় করেছেন। এখন একদিকে কিস্তির চিন্তা, অন্যদিকে ছেলে মেয়েদের চিন্তায় দিশেহারা।

সিএনজি, অটোরিকশা ও টমটম সমিতির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন বলেন, গত ২৬ মার্চ থেকে আজ পর্যন্ত সকল গাড়ি চালানো বন্ধ রয়েছে। চালকেরা খুবই গরিব। বর্তমানে কর্মহীন। ছেলে মেয়েদের নিয়ে অসহায় দিন কাটছে। কাজ ও নেই, একমাত্র ভরসা আল্লাহর উপর।

তবে তার দাবী সরকার যদি চায় তারা হয়ত এই ক্ষতির পরিমান কাটিয়ে উঠবে। তাছাড়া তিনি সরকারের নিকট চালকদের জন্য আর্থিক সহযোগিতা কামনা করছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস, বাইশারী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven − one =

আরও পড়ুন