বাঘাইছড়িতে প্রথম শ্রেণির শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

fec-image

রাঙামাটির জেলার বাঘাইছড়ি পৌরসভার উগলছড়ি গ্রামে ৬ বছরের এক কন্যা শিশুকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালিয়েছে উগলছড়ি ৯ নং ওয়ার্ড এলাকার জসিম উদ্দিনের বখাটে ছেলে জিয়াউর রহমান (সাগর ১৮)। শিশুটি নিউ লাল্যঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

এ বিষয়ে শিশুটির মা বাদী হয়ে বাঘাইছড়ি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। শিশুটির মা অভিযোগ করে বলেন, কিছুদিন আগেও প্রতিবেশী জসিম উদ্দিনের বখাটে ছেলে জিয়াউর রহমান (সাগর) দোকানের পেছনে ডেকে নিয়ে চকলেটে লোভ দেখিয়ে ২০ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ টায় বাড়ির আঙ্গিনা থেকে ডেকে নিয়ে ঘরে টেলিভিশন দেখানোর প্রলোভন দেখিয়ে ২বার ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণ চেষ্টার বিষয়ে কাওকে কিছু বললে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এতে শিশুটি মানসিক ও শারিরিক ভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। পরে শিশুটি তার মাকে ঘটনা খুলে বললে গ্রাম্য ডাক্তার আজগর আলীকে কাছে গিয়ে মেয়ের জ্বর ও শরীল ব্যাথার কথা উল্লেখ করে মেয়েটির বাবা ঔষধ নিয়ে লোক লজ্জায় ঘরের মধ্যে চিকিৎসা করান।

শিশুটির মা ঘটনাটির ব্যাপারে বখাটে জিয়াউর রহমান সাগরের মা ও স্থানীয় কাউন্সিলর নুরুল হক তালুকদারকে জানালে বখাটে সাগর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। কাউন্সিলর ছেলের বাবাকে বিষয়টি অবগত করে বিচারের আশ্বাস দেয়, কিন্তু ছেলে পলাতক থাকায় এখনো বিচার হয়নি।

এদিকে শিশুটির মা বখাটের উপযুক্ত বিচারের জন্য আইনি সহায়তা চেয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ সেল তথ্য সেবার জরুরী নাম্বারে ১০৯ তে ফোন করে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তার মাধ্যমে বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ঘটনা জানালে নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব জিতু বাঘাইছড়ি থানার ওসি আসরাফ উদ্দিনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেন।

বাঘাইছড়ি থানার এসআই মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা সংবাদ পাওয়ার পরপরই থানার এসআই রানা বড়ুয়াকে ঘটনাস্থলে পাঠাই। বখাটে ছেলেটি পলাতক থাকায় তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। পরে ভিকটিমদের বক্তব্য শুনে তার পরিবার কে থানায় অভিযোগ দায়ের করতে বলা হয়।

বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্স আসরাফ উদ্দিন ঘটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি আমরা শুনেছি ও তদন্ত করছি। ভিকটিমের পরিবার থানায় এসেছেন, আমরা শীর্ঘ্রই আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব জিতু বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতনের বিষয়ে স্থানীয়ভাবে মীমাংসার কোন সুযোগ নেই। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পৌর কাউন্সিলরকে সতর্ক করা হয়েছে ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ, বাঘাইছড়ি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × one =

আরও পড়ুন