বান্দরবানে এসএসসি পরীক্ষায় পাসের হার ৭২.৭৫ শতাংশ

fec-image

মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট, এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় এবার বান্দরবান জেলায় পাসের হার বেড়েছে। চলতি বছরে পাসের হার দাঁড়িয়েছে ৭২ দশমিক ৭৫ শতাংশ। গেল বছরে জেলায় এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ছিল ৭০ দশমিক ৩০ শতাংশ।

রবিবার (১২ মে) দুপুরে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস তথ্য মতে, এবার বান্দরবান জেলায় মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় কারিগরি, মাদ্রাসার ও স্কুলের অংশগ্রহণ করেছিল ৫ হাজার ৭২ জন শিক্ষার্থী। তারমধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৩ হাজার ৬৯০ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০০ জন শিক্ষার্থীর।

জেলা শিক্ষা অফিস জানায়, স্কুলভিত্তিক এসএসসি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৪ হাজার ৪৫৯ জন শিক্ষার্থীর। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩ হাজার ২০৩ জন ও জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৩ জন। এবার স্কুলের পাসের হার ৭১ দশমিক ৮৩ শতাংশ। তার মধ্যে ব্যবসা বিভাগে ৭৩ জন উত্তীর্ণ হয়ে এগিয়ে রয়েছে বান্দরবান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, মানবিক বিভাগে ১০১ জন উত্তীর্ণ হয়ে ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ১০৫ জন উত্তীর্ণ হয়ে এগিয়ে আছে বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ।

মাদ্রাসা ভিত্তিক এসএসসি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৪২৩ জন পাশ করেছে ৩৪০ জন ও জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন। যার পাশের মান ৮০ দশমিক ৩৭ শতাংশ। মানবিক বিভাগে ৭৯ জন উত্তীর্ণ হয়ে এগিয়ে রয়েছে লাইনঝিড়ি মোহাম্মদিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা ও বিজ্ঞান বিভাগে ১৩ জন উত্তীর্ণ হয়ে এগিয়ে আছে মদিনাতুল উলুম মডেল ইন্স সিনিয়র মাদ্রাসা।

কারিগরি বিভাগের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ১৯০ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪৭ জন ও জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। যা পাশের হার ছিল ৭৭ দশমিক ৩য় শতাংশ। বিজ্ঞান বিভাগে ৯২ জন উত্তীর্ণ হয়ে এগিয়ে রয়েছে বান্দরবান টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ। এদিকে টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটে একজন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম বলেন, গতবারের বন্যার কারণের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা কিছুটা ঘাটতি ছিল। কারণ সে সময় বন্যাতে সব বই নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। তাই পড়ালেখা তেমন করতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। তবে গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের পাশের হার বেড়েছে। ভবিষ্যতের চেয়ে পাশের হার বাড়বে বলে আশাব্যক্ত করেন এই কর্মকর্তা।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: এসএসসি পরীক্ষা, ফলাফল, বান্দরবান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন