ত্রিপুরা সংগঠনের উদ্যোগে

বান্দরবানে কুকি-চীন কর্তৃক ৩ জনকে হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

fec-image

পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার বড়থলী ইউনিয়নের সাইজাম পাড়ায় ২১ জুন উপজাতীয় শসস্ত্র সংগঠন কুক-চীন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএসএফ) এর গুলিতে উপজাতীয় ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর নিরীহ ৩ গ্রামাবাসী নিহত ও ২ শিশু আহতের ঘটনায় হামলাকারীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ, বান্দরবান জেলা শাখা।

রবিবার (৩ জুলাই) বেলা ১১টায় বান্দরবান প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি খুশিরায় ত্রিপুরা, ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের সভাপতি সমীরন ত্রিপুরা, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য সত্যপাঞ্জি ত্রিপুরা, সাবেক সদস্য পিলিপ ত্রিপুরা, ত্রিপুরা নেতা মালিরাম ত্রিপুরা, সাংবাদিক উজ্জল তংচঙ্গ্যা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এসময় বক্তারা বলেন, গত ২১ জুন বিকাল ৫টার দিকে উপজাতীয় শসস্ত্র সংগঠন কুক-চীন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএসএফ) এর সদস্যরা বিলাইছড়ির সাইজাম ত্রিপুরা পাড়ায় প্রবেশ করে নিরীহ পাড়ার বাসিন্দা বিশাই চন্দ্র ত্রিপুরা, সুভাষচন্দ্র ত্রিপুরা ও ধনরাং ত্রিপুরা নামে তিন জনের উপর গুলি চালায়। এঘটনায় তারা ঘটনা স্থলেই মারা যান। এসময় সন্ত্রাসী শুধু তাদের গুলি করেই ক্ষান্ত হয়নি। ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে দেহ থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে মৃত্যু নিশ্চিত করেছে যা আদিম যুগের বর্বরোচিত নৃশংস হত্যাকাণ্ডকেও হার মানাবে। এসময় গুলিবৃদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে চার বছর বয়সী শিশু অনন্ত ত্রিপুরা ও দুই বছর বয়সী শিশু সুশান্ন ত্রিপুরা

বক্তারা আরো বলেন, কুকি-চীন সন্ত্রাসী দলের কোন সদস্যের সাথে পাড়ার কোন ব্যক্তির কোন বিরোধ নেই। এসব সন্ত্রাসীরা বিনা কারণে পাড়ার নিরীহ পাড়াবসীকে হত্যা করেছে। অবিলম্বে গত ২১ জুন উপজাতীয় শসস্ত্র সংগঠন কুক-চীন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএসএফ) এর হামলায় উপজাতীয় ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর নিরীহ ৩ গ্রামাবাসী নিহত ও গুলিবৃদ্ধ হয়ে নিহত এবং ২ শিশু আহতের ঘটনায় হামলাকারীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six − 1 =

আরও পড়ুন