বান্দরবানে প্রশাসন প্রস্তুত হলেও অপ্রস্তুত ভোটাররা

vote-

স্টাফ রিপোর্টার :
রাত পোহালে রোববার দশম সংসদ নির্বাচন। দেশের অন্যান্য স্থানের মত পাহাড়ি জেলা বান্দরবানেও নির্বাচন শুরু হয়েছে। ৭ উপজেলা ও ২ পৌরসভা নিয়ে গঠিত বান্দরবান জেলায় মাত্র একটি সংসদীয় আসন। দেশের সর্বশেষ ৩০০ নম্বর আসন বান্দরবান। এই আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীসহ চারজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। জেলার ১৬৩টি ভোট কেন্দ্রের নির্বাচনী সরঞ্জামাদি প্রিজাইডিং অফিসারদের কাছে হস্তান্তার করেছে জেলা নির্বাচন অফিস।

বিরোধী দল বিএনপিসহ ৩০টি রাজনৈতিক দল দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করায় অধিকাংশ জনগণের কাছে ভোটদানে আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। নির্বাচনে কারা অংশ গ্রহণ করেছে তা-ও জানেন না অনেক ভোটার। তবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষের কর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। প্রার্থীদের পক্ষে-বিপক্ষে প্রচার-প্রচরণা বন্ধ হয়ে গেলও ভোট দিতে কর্মী সমর্থকদের মাঝে ব্যপক আগ্রহ দেখা যাচ্ছে।

সারাদেশে দশম নির্বাচন নিয়ে সহিংসতা ঘটলেও বান্দরবান জেলার কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর এখনও পাওয়া যায়নি। এছাড়া জেলায় বিরোধী জোটের নির্বাচন প্রতিহতের ঘোষণা না থাকায় অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক কে এম তারিকুল ইসলাম নির্বাচনে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার কাজে নিয়োজিত আইন শৃঙ্খলা বাহীনি ও স্ট্রাইকিং ফোর্সকে সহযোগিতা ও নির্দেশ প্রদানের জন্য সাত উপজেলায় ১৪ জন কর্মকর্তাকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ক্ষমতা দিয়ে এক পরিপত্র জারি করেছেন। সাত উপজেলার সাত জন নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার এবং জেলার সাতজন সহকারী কমিশনারকে নির্বাচনী কাজে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটে ক্ষমতা দিয়েছে জেলা রিটার্নিং অফিসার। এছাড়া অতিরিক্ত জেলা ম্যজিস্ট্রেট ইশরাত জামান ও নেজারত শাখার ডেপুটি কালেক্টর মো. শামীম হোসেন জেলা সদরে অবস্থান করে পুরো জেলার ম্যাজিস্ট্রেরিয়াল দায়িত্ব পালন করবেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহম্মদ নাইক্ষ্যংছড়ি ও এম নাজিম উদ্দিন লামা ও আলীকদম উপজেলার আইন শৃঙ্খলার দায়িত্ব পালন করবেন।

অন্যদিকে জেলা নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন ও নির্বাচনী সরঞ্জাম সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রগুলোতে প্রেরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, বান্দরবানে মোট ১৬৩টি কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে ১২৬টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত হয়েছে। তবে প্রশাসন একে ঝুঁকিপূর্ণ না বলে অধিক গুরুত্বপূর্ণ আখ্যা দিয়েছে। অন্যদিকে জেলার দুর্গম ১৩টি ভোট কেন্দ্র নির্বাচনী কর্মকর্তা ও সরঞ্জাম বহনে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হয়েছে। তবে ৩৭টি কেন্দ্র অধিকগুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় সেগুলোতে নির্বিঘেœ ভোট গ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি ও সর্তকতা গ্রহণ করা হয়েছে।

নির্বাচনী কাজে ১৯৪৫ জন কর্মকর্তা ও কয়েক হাজার আইনশৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত থাকবে বলেও নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে।

বান্দরবান জেলায় ৩ লক্ষ ৭৮ হাজার ৪০ জন অধিবাসীর মধ্য পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ১ লক্ষ ১৪ হাজার ২৪৭ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ৪৩ হাজার ৫৬৩ জন মিলিয়ে সর্বমোট ২ লাখ ১৬ হাজার ৭৯০ জন। ১৬৩টি কেন্দ্রে ১৬৩জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৫৯৪টি বুথের জন্য সমসংখ্যক সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১১৪৪ জন পোলিং অফিসার নির্বাচনী কাজে অংশ গ্রহণ করবে। এছাড়া আরো কয়েক হাজার আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য নির্বাচনী নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven + 10 =

আরও পড়ুন