বান্দরবানে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

 

Untitled-1

বান্দরবান প্রতিনিধি:

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ ও বান্দরবান জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে প্রতিবারের ন্যায় এবারো ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বান্দরবান কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে তোপধ্বনির মাধ্যমে শুরু হয় স্বাধীনতা দিবসের আনুষ্ঠানিকতা।

দিনের শুরুতে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চত্ত্বর স্মৃতিস্তম্ভ এবং বাস ষ্টেশন সংলগ্ন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, বান্দরবান জেলা প্রশাসক কে. এম. তারিকুল ইসলাম, বান্দরবান জেলা পুলিশ সুপার দেবদাস ভট্টাচার্য্য। পরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

সকাল ৭টায় বান্দরবান স্টেডিয়ামে পুলিশ বাহিনী, আনসার ও ভিডিপি, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, স্কাউটস, গার্লস গাইড, কলেজ ও মাদ্রাসার শিশু কিশোর সমাবেশে যোগ দেয় হাজার হাজার শিশু কিশোর ও ছাত্র-ছাত্রী।

এর পর পরই সকাল সাড়ে ৭টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মার্চপাস্টে সালাম গ্রহণ এবং বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যদের কুচকাওয়াজ এবং শারীরিক কসরত প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এসময় মার্চ পাষ্টে সালাম এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, বান্দরবান জেলা প্রশাসক কে. এম তারিকুল ইসলাম।

বেলা ১১ টায় শুরু হয় এবারের স্বাধীনতা দিবসের প্রধান আকর্ষণ লাখো কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন। বাংলাদেশের গড়া আরও একটি নতুন রেকর্ডে শামিল হতে বান্দরবানেও একসঙ্গে সুর মিলিয়ে হৃদয়ের স্পন্দনে হাজারো বাঙালি গাইলেন জাতীয় সংগীত। বুধবার বেলা ১১ টায় সবুজ পাহাড় ঘেরা বান্দরবান স্টেডিয়ামে ওঠা সুরে কণ্ঠ মিলিয়ে হাজারো বাঙালি গেয়ে উঠেন, ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি…’।

প্রিয় প্রাণের সংগীত গাওয়ার মুহূর্তে যেন খানিক সময়ের জন্য থমকে দাঁড়ায় গোটা বান্দরবান। জাতীয় কর্মসূচীর সাথে সামঞ্জস্য রেখে সারাদেশের ন্যায় সকলে স্ব স্ব অবস্থানে থেকে সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনে করা হয়। যে, যেখানে, যে অবস্থায় ছিলেন সেভাবেই দাঁড়িয়ে যান, কণ্ঠ মেলান জাতীয় সংগীতের সুরে। এমসময় শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক,  সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনও এই কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

কেবল বান্দরবান শহর নয়, গোটা জেলার লাখো মানুষও কণ্ঠ মিলিয়েছেন ‘আমার সোনার বাংলা’য়। প্রত্যন্ত গ্রামে থাকা মানুষগুলোও এসময় গলা মিলিয়েছেন টেলিভিশন সেটের সামনে বসে। এসময় সারা দেশের ন্যায় লাখো কন্ঠে সুর মেলালেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, বান্দরবান জেলা প্রশাসক কে. এম তারিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার দেবদাস ভট্টাচার্য্য, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট ইশরাত জামান, নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) শামীম হোসেন, বান্দরবান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জ্ঞান রঞ্জন চাকমা, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল আবছার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ফারুক আহমেদ, নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) শামীম হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমির আবদুল্লাহ মো. মঞ্জুরুল করিম, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট গোলাম মোরশেদ, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নিভা হক, বান্দরবান প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক মো. ওসমান গণি, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মো. বাদশা মিঞা মাষ্টারসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পিরা।

এদিকে সন্ধ্যা ৭টায় ‘সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার’-শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট অডিটরিয়ামে। একই স্থানে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 − 8 =

আরও পড়ুন