বাল্যবিবাহ বন্ধে চাই সামাজিক আন্দোলন

fec-image

দিনের পর দিন বাল্যবিবাহ সামাজিক ব্যাধিতে পরিনত হচ্ছে উল্লেখ করে বাল্যবিবাহ বন্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার তাগিদ দিয়ে মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় আমাদের সমাজ থেকে বাল্যবিবাহকে চিরতরে বিদায় জানাতে হবে। এজন্য সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করার উপর জোর দিয়ে বলেন সচেতনতা ছাড়া বাল্যবিবাহ নিরোধ সম্ভব নয়।

রোববার (৩১ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিচালন উন্ননয় প্রকল্পের (ইউজিডিপি) সক্ষমতা বৃদ্ধিমুলক উপ-প্রকল্পের আওতায় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন বিষয়ে দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, কাজী, অভিবাবক, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের আয়োজনে এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মো. হেদায়েত উল্যাহ। কর্মশালায় মাটিরাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমজাদ হোসেন ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মো.ওবায়তুল হক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

বাল্যবিবাহের কারণে নারী শিক্ষার অগ্রগতি ব্যাহত হওয়া ছাড়াও এর কারনে মাতৃমৃত্যুর ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে মন্তব্য করে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মো. হেদায়েত উল্যাহ বলেন, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭ এ আইনে ২২টি ধারা আছে। তন্মধ্যে ১৯ ধারা বিশেষ শর্তসম্পর্কিত। জন্ম নিবন্ধন সনদ ব্যতীত কোন অবস্থাতেই নিকাহ রেজিষ্টার যেন বিবাহ নিবন্ধন না করেন সেজন্য সকলকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, বাল্যবিবাহ সংগঠিত করার জন্য শাস্তির বিধান রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen + 7 =

আরও পড়ুন