বিজয় দিবসে নতুন করে জাতীয় পতাকা লাগাতে হবে : কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

fec-image

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা লাল সবুজের এই বাংলাদেশ পেয়েছি। তাই আগামী ১৫ ডিসেম্বর হতে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৩ দিনব্যাপী কাপ্তাই উপজেলা পর্যায়ে বর্নাঢ্য আয়োজনে বিজয় দিবসের বিভিন্ন কর্মসুচি পালন করা হবে। ১৫ ডিসেম্বর কাপ্তাই প্রকল্প এলাকায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবরে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন এর মাধ্যমে কর্মসুচি শুরু হবে। ঐ দিন উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে শিশু কিশোর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা এবং সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা।

তিনি বলেন, ১৬ ডিসেম্বর উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে বিজয় দিবসের কর্মসুচি শুরু হবে। ঐ দিন উপজেলা সদরে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ, মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা, মহিলা ও পুরুষদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। বিজয় দিবসের দিন বিকেলে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে শিল্পকলা একাডেমির পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে ৩ দিনব্যাপী কাপ্তাই তথ্য অফিস মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করবে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে।

তিনি আরো বলেন, এবারের বিজয় দিবসে জাতীয় পতাকা সবাইকে নতুন করে লাগাতে হবে।

প্রস্ততি সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মফিজুল হক।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, বানৌজা শহীদ মৌয়াজ্জম ঘাঁটির অধিনায়কের প্রতিনিধি লেঃ রাশেদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম খলিল, উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উমেচিং মারমা, কাপ্তাই থানার ওসি নাছির উদ্দিন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামসুল আলম চৌধুরী, উপজেলা স্কাউটস এর সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব হোসেন বাবু, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বিদর্শন বড়ুয়া, শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক ফনিন্দ্র লাল ত্রিপুরা, কাপ্তাই প্রেসক্লাবের সভাপতি কবির হোসেন, সম্পাদক ঝুলন দত্তসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিক এবং বিভিন্ন এনজিও সমুহের প্রতিনিধিরা।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, শহীদ মিনার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − 3 =

আরও পড়ুন