বিলাইছড়িতে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ

fec-image

রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলাস্থ বড়থলি ইউনিয়নের সাইজাম পাড়ায় সংঘটিত জেএলএ-কেএনএফ সন্ত্রাসীদের মধ্যে সংঘটিত বন্দুকযুদ্ধে ঘটনায় হত্যাকাণ্ডে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ।

শুক্রবার (২৪ জুন) বাত্রিকস এর সভাপতি সুশীল জীবন ত্রিপুরা স্বাক্ষরিত অপর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। অপরদিকে টিএসএফ’এর পক্ষ থেকে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নয়ন ত্রিপুরা ও সাধারণ সম্পাদক অঞ্জু লাল ত্রিপুরা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিবৃতিতে এই নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

টিএসএফ’এর বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, “গত ২১ জুন মঙ্গলবার আনুমানিক সন্ধ্যা ৬টার দিকে রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলার ৪নং বড়থলি ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড, সাইজাম পাড়া গ্রামে এলোপাতাড়িভাবে গুলি চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে একই পািরবারের ৩ জনসহ মোট ৪ জন নিরীহ জুমচাষি ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীকে হত্যাসহ ২জন শিশুকে গুরুতর আহত করে। এতে কয়েকজন পালিয়ে বেঁচে যান এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় খবর দিতে সক্ষম হন।”

টিএসএফ’এর প্রেস বিবৃতিতে উল্লিখিত চারটি দাবি হল-

“(১) ত্রিপুরা গ্রামে হামলা করে নিরীহ জুম চাষী ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীদের হত্যাকারীদের আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করা হোক। (২) নিহত ও আহত ব্যক্তিদের পরিবারগুলোকে যথোপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হোক। (৩) আক্রান্ত গ্রামবাসীদের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হোক। (৪) কেএনএফ’র সংগঠনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে।

বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ, কেন্দ্রীয় কমিটি, বান্দরবানসহ সারা বাংলাদেশের সকল আঞ্চলিক কমিটি এমন কার্যকলাপে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে এ হত্যাকান্ডে জড়িত ব্যাক্তি বা গোষ্ঠীদের দ্রুত সময়ে গ্রেপ্তার করে আইনে আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানে জোর দাবি জানাচ্ছি।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিকট এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের শাস্তিস্বরূপ আমাদের ৫টি দাবিসমূহ নিম্নরূপ:-

১) নৃশংস হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুষ্কৃতিকারীদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে সঠিক ন্যায় বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করতে হবে।
২) আহতদের সুচিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত সহযোগিতা করতে হবে।
৩) নিহত ও আহত পরিবারের ক্ষতিপূূরণ প্রদানের উদ্যোগ নিতে হবে।
৪) নিহত ও আহত পরিবারের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা প্রদান করতে হবে।
৫) ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনা যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য জোর দাবি জানাই।

এ নৃশংস হামলায় নিহতরা হলেন- বিচাই চন্দ্র ত্রিপুরা (৫২), সুভাষ চন্দ্র ত্রিপুরা (২৩), বীর কুমার ত্রিপুরা(২১), ধনরাম ত্রিপুরা (১৬)। গুলিতে ঘটনাস্থলে নিহত হওয়ার পরও সন্ত্রাসীরা বিচাই চন্দ্র ত্রিপুরাকে কুপিয়ে মাথা কেটে চলে যায়। অপরদিকে আহত শিশুরা হলেন- অনন্ত ত্রিপুরা (৪), সুমনা ত্রিপুরা (১.৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২১ জুন ওই সময়ে সাইজাম পাড়া গ্রামের উপজাতি ত্রিপুরা গ্রামবাসীরা যে যার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন ঠিক তখনই কেএনএফ সন্ত্রাসীদের একটি সশস্ত্র দল সেখানে এসে গ্রামবাসীদের উপর এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষণ করে। এতে ঘটনাস্থলে ৪ জন নিহত হয়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ত্রিপুরা, বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ, বিলাইছড়ি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × five =

আরও পড়ুন