বিশ্বের শক্তিশালী সুসজ্জিত সামরিক বাহিনীর দেশ

স্টাফ রিপোর্টার:
পৃথিবীর প্রতিটি রাষ্ট্রই নিজের সামরিক শক্তির সুসজ্জিতকরণে সর্বদা সচেষ্ট । সাধারণভাবে কোনও রাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর শক্তি সামর্থের উপরে সে দেশের সামরিক সমৃদ্ধি নির্ভর করে। পৃথিবীর এমন সুসজ্জিত ১১টি দেশের সামরিক বাহিনীর শক্তির কথা অধোক্রমানুসারে নিচে তুলে ধরা হল:

১১. ইসরায়েল: সামরিক ক্ষমতায় ইসরায়েল সবসময় অন্যান্য রাস্ট্রের সমীহ আদায় করে চলে। সামরিক শক্তির ব্যাপারে ধারণা করা হয়, এই মুহূর্তে তাদের অধীনে রয়েছে ৮০ থেকে ১০০টি পরমাণু অস্ত্র। প্রায় চার হাজার সাঁজোয়া গাড়িসহ বিশাল ট্যাঙ্ক বাহিনী। যুদ্ধ ও বোমারু বিমান রয়েছে ৬৮০টি। ইসরায়েলের সব নাগরিককের সামরিক প্রশিক্ষণ নেয়া বাধ্যতামূলক।

Powerful-army-11

১০. জাপান: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ধ্বংশলীলার পর আবার সামরিক শক্তিতে এগিয়ে যাচ্ছে জাপান। সিনজো আবে প্রধানমন্ত্রী হয়ে প্রতিরক্ষা খাতে খুব নজর দিয়েছেন। জাতীয় বাজেটে ৫ হাজার কোটি ডলার বরাদ্দ করছে সামরিক খাতে । এছাড়া বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রায় দেড় হাজার জঙ্গি ও বোমারু বিমান রয়েছে জাপানের৷ তাদের রয়েছে চোস্ত বিমানচালক।সদাপ্রস্তুত ১৬টি সাবমেরিনও রয়েছে জাপানের নৌবহরে।

Powerful-army-10

৯. দক্ষিণ কোরিয়া: দক্ষিন কোরিয়া নিজেদের সামরিক শক্তি প্রকাশ না করলেও ক্রমশ তাদের শক্তিবৃদ্ধি অনেকেরই আজ মাথাব্যথার কারণ। প্রতি বছর ৩৪০০ কোটি ডলার তাদের প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়। দক্ষিণ কোরীয় সেনাবাহিনীতে রয়েছে ৬ লাখ ৪০ হাজার সক্রিয় ফৌজি। তাদের ২৩০০ ট্যাঙ্ক ও ১৪০০ প্রস্তুত যুদ্ধ ও বোমারু বিমান রয়েছে ।

Powerful-army-9

৮. তুরস্ক: ইউরেশিয়ার অন্যতম রাষ্ট্র তুরুস্ক। চার লাখ সেনা রয়েছে তুরুস্কের সামরিক বাহিনীতে। ট্যাঙ্কের বিশাল বহরসহ সাড়ে তিন হাজার সাঁজোয়া গাড়ি ও হাজার লড়াকু বিমান রয়েছে তুরুস্কের।

Powerful-army-8

৭. জার্মানি: সামরিক শক্তির নিরিখে গত বছর নয় নম্বরে থাকা জার্মান সেনাবাহিনী এবছর বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ের সাত নম্বরে উঠে এসেছে। বাজেটে প্রতি বছর ৪৫০০ কোটি ডলার বরাদ্দ করে জার্মান সরকার।তাদের অন্তত ২ লাখ সেনা রয়েছে জার্মান সামরিক বাহিনীতে। সঙ্গে রয়েছে ৭০০ ফাইটার জেটও৷

Powerful-army-7

৬. ফ্রান্স: সামরিক শক্তির বিচারে বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে চার থেকে ছয় নম্বরে নেমে আসা ফ্রান্স এখনও অনেক শক্তিশালী৷ ৩০০ পরমাণু অস্ত্র ও অন্তত আড়াই লাখ পদাতিক সৈন্যের সমৃদ্ধ ফ্রান্স সামরিকবাহিনী শক্তির নিরিখে একটু নিচে নেমে গিয়েছে। এছাড়া ফ্রান্সের বিমানবহরে রয়েছে এক হাজারেরও বেশি যুদ্ধ ও বোমারু বিমান।

Powerful-army-6

৫. ব্রিটেন: বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সুপার-পাওয়ার বলা চলে ব্রিটেনকে। ব্রিটেনের ভাঁড়ারে রয়েছে দু’শো পরমাণু অস্ত্র, যা ব্রিটিশ সেনাবাহিনীকে পরিণত করেছে বিশ্বের পঞ্চম শক্তিশালী বাহিনীতে। সামরিক দিক থেকে তাদের বিমানের সংখ্যা ৯০৮টি। তাদের আর্মির যোগ্যতা ও দক্ষতা বিশ্বে প্রমাণিত।

Powerful-army-5

৪. ভারত: সামরিক শক্তির বিচারে ভারত এখন অন্যতম পরাক্রমশালী। বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান চার নম্বরে । প্রায় ১৩ লাখ পদাতিক বাহিনী, শতাধিক পরমাণু অস্ত্র ও সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি যুদ্ধ ও বোমারু বিমান নিয়ে বিশ্ব শক্তিতে ভারত নিজেদের শক্ত অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

Powerful-army-4

৩. চীন: পৃথিবীর অন্যতম সামরিক শক্তি সমৃদ্ধ দেশ হল সমাজতান্ত্রিক চীন। প্রতি বছর বাজেটে ১২ হাজার ৬০০ কোটি ডলার বরাদ্ধ করে চীনা সেনাবাহিনীকে বিশ্বের তিন নম্বর অবস্থানে প্রতিষ্ঠা করেছে চীনা সরকার। বর্তমানে তাদের লক্ষ সামরিক শক্তিতে বিশ্বের দুই নম্বর অবস্থানে নিজেদের আসীন করা৷ তাদের পদাতিক সৈন্যে রয়েছে ২৩ লাখ।

Powerful-army-3

২. রাশিয়া: বিশ্ব সামরিক শক্তির বিচারে রাশিয়া দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। তাদের পরমাণু অস্ত্রের আছে অন্তত সাড়ে আট হাজার। বিশ্ব দরবারে রাশিয়া তাদের ক্ষমতা না দেখালেও গোটা দুনিয়া জানে রাশিয়ার সামরিক সামর্থ্যের কথা। স্থলযুদ্ধে ১৫ হাজার ট্যাঙ্ক নিয়ে এখনও বিশাল শক্তির অধিকারী রাশিয়া।

Powerful-army-2

১. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র: বর্তমান বিশ্বের সবচাইতে শক্তিসমৃদ্ধ দেশ হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সাড়ে সাত হাজার পরমাণু অস্ত্র এবং ১৩ হাজার ৬৮৩টি যুদ্ধ ও বোমারু বিমান নিয়ে বরাবরের মতো শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে আমেরিকা। প্রতি বছর প্রতিরক্ষা খাতের জন্য বরাদ্দ থাকে ৬১ হাজার ২০০ কোটি ডলার।

Powerful-army-1

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − 4 =

আরও পড়ুন