ভারী বর্ষণে ডুবে গেল চন্দ্রঘোনা ফেরিঘাটের পাটাতন

fec-image

গত কয়েকদিনের অবিরাম বর্ষণের কারণে ডুবে গেছে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনা ফেরিঘাটের পাটাতন।

রোববার (১৯ জুন) সন্ধ্যায় ফেরীর পাঠতন ডুবে যায়।

ফেরির পাটাতন ডুবে যাওয়ায় পারাপারে চরম বিপাকে পড়েছে বান্দরবান-রাজস্থলী- কাপ্তাই উপজেলার যানবাহনগুলো। এ সুযোগে আটকে পড়া যানবাহনগুলো পারাপারে সহযোগিতার বিনিময়ে শ্রমিকরা নিচ্ছেন ৫০ থেকে ১০০ টাকা।

সিএনজি চালক খোকন মল্লিক, মো. ফরিদ, ইস্কান্দর হোসেন জানান, অতিরিক্ত পানি উঠায় ফেরির পাটাতন ডুবে গেছে। বাড়তি টাকার বিনিময়ে লোকজনের সহায়তায় সিএনজি কোন রকমে ফেরিতে তুললাম।

মোটরসাইকেল আরোহী জয়ন্ত ধর, আবুল হোসেন জানান, পাটাতনে অতিরিক্ত পানির ফলে ফেরিতে উঠতে পারছি না।

হতে আসা কাপ্তাই প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক ঝুলন দত্ত, গণমাধ্যমকর্মী অর্নব মল্লিক ও সংস্কৃতিকর্মী অনুপম দেব জানান, আজকের মতো অবস্থা অতীত নিকটে দেখি নাই। আমরা যে সিএনজিতে উঠেছি সেটা ফেরির দুই পাড়ের লোকজনের সহায়তায় বাড়তি টাকা দিয়ে ফেরিতে উঠতে এবং পার হয়ে নামতে সক্ষম হয়েছি।

চন্দ্রঘোনা ফেরির তত্তাবধায়ক মো. শাহজাহান ও চালক আমিন বলেন, অতি বর্ষণের ফলে কর্ণফুলি নদীতে পানি বেড়ে যাওয়া রোববার বিকেল থেকে ফেরিঘাটের উভয় পাড়ের পাটাতনে পানি উঠে যায়। ফলে ভারী যানবাহন তীরে উঠতে পারলেও হালকা যানবাহন যেমন সিএনজি ও মোটর সাইকেল তীরে উঠতে বেশ কষ্টকর হয়ে পড়ে। তারা আরও বলেন, যদি এইভাবে বৃষ্টি অব্যাহত থাকে তাহলে পাটাতনে অতিরিক্ত পানি উঠলে ফেরি চলাচল যেকোন সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চন্দ্রঘোনা, ফেরিঘাট
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × one =

আরও পড়ুন