ভোট হবে ইভিএমে: মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচনে ৪১ প্রার্থীর প্রচারণা

fec-image

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের নতুন ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) অনুষ্ঠিত হচ্ছে কক্সবাজারের মহেশখালী পৌরসভার বহুল প্রতিক্ষিত নির্বাচন। প্রথমবারের মতো মহেশখালী পৌরসভার নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে ইতোমধ্যে দুইদফা নির্বাচনী কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছিলো নির্বাচন কমিশন।

ঘোষিত তফসিল মোতাবেক চলতি বছরের ১১ এপ্রিল এবং পরবর্তী সময়ে ২১ জুন অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল মহেশখালী পৌরসভার নির্বাচন। পরবর্তী সময়ে করোনা দুর্যোগের আশঙ্কা থেকে সারাদেশের অন্য পৌরসভার সঙ্গে মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচনও স্থগিত হয়ে যায়। দুইমাস পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করলে সর্বশেষ ২ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশনের বৈঠক শেষে স্থগিত পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আগামী ২০ সেপ্টেম্বর মহেশখালী পৌরসভার দিনক্ষণ ধার্য্য করে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার ঘোষণা আসার পর থেকে আবারও সরগরম হয়ে উঠেছে পৌরসভার প্রতিটি জনপদ। এখন অলিগলিতে শোভা পাচ্ছে প্রার্থীদের পোস্টার ব্যানার ফেস্টুন তবে আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণা চালাতে পারবে ১০ সেপ্টম্বর থেকে।

অপরদিকে নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রির্টানিং কর্মকর্তা ও মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুর রহমান ইতোমধ্যে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করতে প্রার্থীদের জন্য প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন। ২ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, নির্বাচনী আচরণবিধি অনুসরণপুর্বক স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখন থেকে প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাতে পারবেন। মুলত রির্টানিং কর্মকর্তার সেই নির্দেশনার প্রেক্ষিতে এখন প্রার্থীরা মাঠে নেমেছে। চালাচ্ছেন উঠান বৈঠক, গনসংযোগসহ নানামুখী প্রচারণা।

মহেশখালী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে তিন ওয়ার্ডে ১৪ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯ ওয়ার্ডে ৩২ জনসহ তিন পদে সর্বমোট ৫০ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।

তন্মধ্যে বাতিল হওয়া, আপীলে ফিরে পাওয়াসহ বর্তমানে মেয়র পদে ৪ জন, ৩টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন এবং ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৭ জনসহ সর্বমোট ৪২ জন প্রার্থী ভোটে আছেন। ইতোমধ্যে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীকও বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বি চারপ্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র ও মহেশখালী পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আলহাজ¦ মকছুদ মিয়া (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র সরওয়ার আজম বিএ (নারিকেল গাছ), স্বতন্ত্র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন (মোবাইল ফোন), স্বতন্ত্র প্রার্থী সারজিনা আক্তার (জগ)।

ভোটের লড়াইয়ে মাঠে চলছে কথার লড়াই প্রতিটি চায়ের দোকান থেকে শুরু করে পাড়ার অলিতেগলিতে চলছে কথার ফুলঝুরি। সেই হিসেবে এবারের নির্বাচনে ভোটের লড়াই হবে মুলত আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ¦ মকছুদ মিয়া বনাম স্বতন্ত্র প্রার্থী নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থী সরওয়ার আজমের সাথে।

উল্লেখ্য, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত মহেশখালী পৌরসভার নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে ভোট প্রয়োগ করবেন মোট ২০ হাজার ৪২৭ ভোটার।,তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৭৯৯ জন এবং নারী ভোটার রয়েছে ৯ হাজার ৬২৮ জন। এবারে নিব্র্চানে দুটি কেন্দ্র পরির্বতন করা হয়েছে।

গোরকঘাটা বাজারের ভুমি অফিস ৭নং ওর্য়াডের কেন্দ্রটি বর্তমানে সিকদার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ৫নং ওর্য়াডের ঘোনাপাড়া মসজিদের কেন্দ্রটি পাশে মওদুদ আহমেদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরির্বতন করা হয়েছে। পৌরসভার মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১০টি, মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ৪৭টি ।

ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১নং ওর্য়াড, পুটিবিলা ইসলামীয়া ফাজিল মাদ্রাসা ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৯৭০জন, ২নং ওর্য়াড মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মোট ভোটার সংখ্যা ২৫৩০জন, ৩নং ওর্য়াড মহেশখালী কলেজ ভোট কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ৩৩৪৩জন, ৪নং ওর্য়াড বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১৮১২ জন, ৫নং ওর্য়াড এডভোকেট মওদুদ আহমদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মোট ভোটার সংখ্যা ২৭৪১ জন, ৬নং ওর্য়াড গোরকঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ২২৫৫ জন, ৭নং ওর্য়াড পল্লীভবন ভোট কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১৫২৬ জন, ৮নং ওর্য়াড জামিয়া আরবিয়া গোরকঘাটা মাদ্রাসা ভোট কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ২৩৮৩ জন, ৯নং ওর্য়াড চরপাড়া রেড ক্রিসেন্ট ভোট কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১৮৭০জন।

মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার জুলকার নাঈম বলেন, অনুষ্ঠিতব্য মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচন ‘সুষ্ঠু, অবাধ, গ্রহণযোগ্য পরিবেশে সম্পন্ন করতে প্রশাসনের তরফ যাবতীয় প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি প্রচার-প্রচারণার সময় প্রার্থীরা নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে কী-না তাও কঠোরভাবে নজরদারি করা হচ্ছে এবং আগামী ১৮ সেপ্টম্বর পৌরসভার ভোটারদের জন্য কিভাবে ভোটারা ইভিএমে ভোট প্রদান করবেন তা শেখানো হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − three =

আরও পড়ুন