মহেশখালীতে সামাজিক বনায়নের সদস্যরা পেলেন লভ্যাংশের ৬৬ লাখ টাকা

fec-image

শেখ হাসিনার নির্দেশ জলবায়ু সহিষ্ঞু বাংলাদেশ, এই প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে মহেশখালী উপজেলার বন বিভাগের আওতাধীন সমাজিক বনায়ন সৃজন করে উপকার ভোগীরা পেলেন ৬৬ লাখ টাকার চেক। উপকূলীয় বন বিভাগ কর্তৃক এই বনায়নের জন্য উপজেলা শতাধিক স্থানীয় লোকজন গত ১০ বছর ধরে এই বনায়ন সৃজন করার পর রক্ষানাবেক্ষন করে আসছিলো । এই প্রথম ধাপে তাদের লভ্যাংশর টাকা বিতরণ করেন উপকূলীয় বন বিভাগ।

এই উপলক্ষে রবিবার (৯ জানুয়ারি) বিকাল ৩টায় উপজেলার কালারমারছড়ার আধারঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক চেক বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপকূলীয় বন বিভাগ। বিভাগীয় বন কর্মর্কতা আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার -২ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, মহেশখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শরিফ বাদশা, মহেশখালী থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল হাই, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ফরিদুল আলম, কালারমারছড়ার ইউপি চেয়ারম্যান তারেক ওসমান শরিফ, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও সমাজ সেবক সেলিম চৌধুরী, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু নোমান মো. আব্দুল্লাহ, উপজেলা বন র্কমর্কতা আনিসুল হক, সমাজিক বনায়নের সভাপতি ছিদ্দিক আহমদ, আমান উল্লাহ সহ বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আব্দু রহমান জানান, এবারে মহেশখালীতে ৬০ জনকে সামাজিক বনায়ন সৃজনের জন্য ৫৩ লাখ ৩২ হাজার ৮০ টাকা, ২০ জনকে ৬৩ হাজার ৬শত ১০ টাকা করে কৃষি খাতে ১২ লাখ ৭২ হাজার ২শত টাকা। সর্ব মোট ৬৬ লাখ টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে এবং আগামীতে আরও বেশি করে সামাজিক বনায়ন সৃজন করে লাভ করবে এই এলাকার লোকজন।

তিনি এক প্রশ্নের জবাবে বলেন , মহেশখালীতে কাঁকড়া চাষ করলে বন বিভাগের লাইন্সেস নিতে হয় এবং তা অল্প টাকায় আমরা চাই সবাই সাবলম্বী  হয়ে মহেশখালীর উন্নয়নের অংশিদার হউক।

সভায় প্রধান অতিথি সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক বলেন, আমরা পাহাড়ের গাছ কাটি এটি গুরুতর অপরাধ আমরা সামাজিক বনায়ন আরও বেশি করে সৃজন করে এভাবে ঘরে বসে টাকা রোজগার করতে পারি, গাছ যেমন আমাদের অক্সিজেন দেয় তেমনি আমাদের আরও বহু উপকার করে । পুরুষের পাশাপাশি মেয়েদের এই বনায়ন কাজে সম্পৃক্ত করার আহ্বান করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 3 =

আরও পড়ুন