মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসে জনবল সংকট: দুর্ভোগে সেবা গ্রহিতারা

fec-image

দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর (ভূমি)মালিক ও সাধারণ জনগণকে (ভুমি) সংক্রান্ত সেবা সঠিক উপায়ে প্রদানের লক্ষে লকডাউন চলাকালে গত ১৪ জুলাই ২০২১ তারিখে মহেশখালী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদে যােগদান করেন বিসিএস ক্যাডারের কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম এর পর থেকে বদলে যায় উপজেলা (ভূমি) অফিস ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন (ভূমি) অফিসের চিত্র ।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম যোগদানের পর থেকে সেবার মান বৃদ্ধি পাচ্ছে, এই কার্যক্রমকে আরাও ত্বরান্বিত করার কাজ হাতে নিয়েছে। কিন্তু জনবল সংকট, দুর্ভোগে বাংলাদেশের একমাত্র পাহাড়ি দ্বীপ মহেশখালীতে নানা জটিলতায় এই অঞ্চলে ভূমি সেবা গ্রহীতারা।

এখানকার রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছিল দুর্নীতি, দালালের উপদ্রব ছিল সবচেয়ে বেশি। দালালরাই কর্মকর্তা আর বেঞ্চ সহকারীদের নাম দিয়ে ঘুষের টাকা হাতিয়ে নেয়।

মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে সেবা কার্যক্রম। ভূমি অফিসে লোকবল সংকটের কারণে বহিরাগতদের দাপট চোখে পড়ার মতো। জনবল সংকটের কারণে অফিসের দৈনন্দিন কর্মকান্ডে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলমান।

চলমান উন্নয়ন প্রকল্পে সরকারের অধিগ্রহণকৃত জমি ও ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি নিয়ে সেবা নিতে আসা মানুষগুলো মাসের পর মাস দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মানুষ ভূমি অফিসে সেবা নিতে এসেছেন। ভূমি অফিস, অফিসের সামনে এবং অফিসের সেবা কেন্দ্রে বসে অলস সময় কাটাচ্ছেন তারা।

উপজেলা ভূমি অফিস সূত্র জানায়- মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিস-১টি ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি অফিস রয়েছে ৫টি। যথাক্রমে- মহেশখালী পৌরসভা, ছোট মহেশখালী ও কুতুবজোম ইউনিয়নের জন্য গোরকঘাটা ভূমি অফিস, শাপলাপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস, হোয়ানক ইউনিয়ন ভূমি অফিস, কালামারছড়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস, ধলঘাটা ও মাতারবাড়ী ইউনিয়ন নিয়ে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি অফিস রয়েছে।

মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসে কর্মকর্তা কর্মচারী সহ মোট ১৪টি মঞ্জুরীকৃত পদ রয়েছে।

তৎমধ্যে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সহ ৭টি পদে মঞ্জুরীকৃত কর্মচারীরা কর্মরত আছে। বাকী ৭টি মঞ্জুরীকৃত পদে কর্মকর্তা,কর্মচারী শূন্য। শূন্য মঞ্জুরীকৃত পদ, কানুনগো ১জন, সার্ভিয়ার-১জন, অফিস সহকারী ৩ জন, জারীকারক ২ জন।

অপরদিকে উপজেলার সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি অফিস সমূহে ৫জন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার মঞ্জুরীকৃত পদ থাকলেও ৫টি পদই শূন্য রয়েছে। উপ-সহকারী কর্মকর্তা দিয়ে চলছে ইউনিয়ন (ভূমি) অফিসের কার্যক্রম।

ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তার মঞ্জুরীকৃত পদ ৬টির মধ্যে ২টি শূন্য রয়েছে। অফিস সহায়কের মঞ্জুরীকৃত পদ ১১টির মধ্যে ৪টিতে কর্মরত রয়েছে বাকী ৭টি মঞ্জুরীকৃত পদ শূন্য। অফিসগুলোতে ৩৬ পদের মধ্যে ২১টি পদই শূন্য।

নানা সমস্যায় ভুগছেন দ্বীপ অঞ্চলে মানুষ। প্রতিদিন গড়ে ১০০ থেকে ১৫০ জন মানুষ নানা রকম ভূমি সেবা পেতে এসে ফিরে যাচ্ছেন। ইউনিয়ন ভূমি অফিসেও একই দুর্ভোগ পোহাচ্ছে মানুষ।

জানা যায়-কানুনগো না থাকায় খাস জমিজমা সংক্রান্ত মামলার তদন্ত, নামজারী জমাভাগ খতিয়ান সৃজনসহ মামালার প্রতিবেদনে নানান সমস্যায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে মানুষ। সার্ভেয়ার না থাকায় খাসজমি তদন্ত সংক্রান্ত কাজ, অবৈধ দখল ও উচ্ছেদ,কার্যক্রম তথ্য সংরক্ষণ, আবাসন-আশ্রায়ন, গুচ্ছগ্রাম সংক্রান্ত কার্যক্রম ও নথি সংরক্ষণের কাজ করা যাচ্ছে না।

মহেশখালী উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন- বর্তমানে অত্র অফিসে লোকবল কম, আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিষয়টি জানিয়েছি, আশা করি দ্রুত সময়ে শূন্য পদে লোকবল নিয়োগ হবে। দক্ষ, স্বচ্ছ, জনবান্ধব ও জবাবদিহিমূলক ভূমিসেবা নিশ্চিত করতে না পারলে সার্বিকভাবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না। (ভূমি) মানুষের অমূল্য সম্পদ এ অমূল্য সম্পদ ডিজিটাইজেশনের মাধ্যমে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার আওতায় আনা এখন সময়ের দাবি।

বর্তমান সরকার (ভূমি) সেক্টরটিকে মানসম্মত পর্যায়ে উন্নীত করতে অনেকগুলি ইতিবাচক উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় (ভূমি)খাতে জনসেবা প্রদান সহজীকরণ এবং ভোগান্তি ও দুর্ভোগ লাঘব হবে। এতে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক একটি রাজস্ব ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা যাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 1 =

আরও পড়ুন