মাটিরাঙ্গায় বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা নেয়নি পুলিশ!

fec-image

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙার গাজিনগরে বিজিবির গুলিতে একই পরিবারের তিনজনসহ চার জনের নিহত হওয়ার ঘটনায় বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন নিহত মো. মফিজ মিয়ার ছেলে মো. মানিক মিয়া। এদিকে নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ থানায় অভিযোগ করতে যায়নি বলে দাবি করেছেন মাটিরাঙ্গা থানা পুলিমের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শামসুদ্দিন ভুইয়া।

বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ার অভিযোগ করে নিহত মো. মফিজ মিয়ার ছেলে মো. মানিক মিয়া বলেন, আমি পিতাসহ স্বজনদের দাফন ও গুলিবিদ্ধ ভাইয়ের চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত থাকার পর গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার কাউন্সিলর আলাউদ্দিন লিটনকে সাথে নিয়ে বিজিবির হাবিলদার মো. ইসহাক আলীকে প্রধান আসামি করে বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা করতে গেলেও পুলিশ আমাদের মামলা না নিয়ে বের করে দেন।

মঙ্গলবারের (৩মার্চ) সংগঠিত ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করা দাবি জানিয়ে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো শামছুল হক বলেন, গ্রামবাসীর সাথে বিজিবির সংঘর্ষ হয়নি, নিজের বাগানের দুটি কাঠাল গাছ কাটার অপরাধে দুইটি পরিবারের চারজনকে গুলি করে হত্যা করেছে বিজিবি। যার গুলিতে মানুষ মরলো, সে আবার মিথ্যা মামলার বাদী এমন মন্তব্য করে ক্ষতিগ্রস্ত সাধারণ মানুষের মামলাটি গ্রহণের দাবি জানান তিনি।

মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. এমরান হোসেন বলেন, বিজিবিরি বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, মিথ্যা মামলার খড়গ মাথায় নিয়ে সাধারণ মানুষ ভীতির মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। মানুষ বনে জঙ্গলে রাত কাটাচ্ছে। এই ঘটনায় মানুষের মধ্যে আতংকের পাশাপাশি ক্ষোভ বিরাজ করছে। মানুষ এই অন্যায়ের বিচার চাই।

বিজিবির পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হলেও গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ করা হয়নি দাবি করে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শামসুদ্দিন ভুইয়া বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে বিজিবির পক্ষ থেকে দায়ের করা মামলা গ্রহণ করা হলেও ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসির পক্ষে নিহত মো. মফিজ মিয়ার ছেলে মো. মানিক মিয়ার অভিযোগ গ্রহণ না করায় পুলিশের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ন্যায় বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। মাটিরাঙ্গাজুড়ে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আর এ ক্ষোভ যেকোন সময় বিক্ষোভে পরিনত হতে পারে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (৩ মার্চ) জনৈক চান মিয়ার বাগানের চার টুকরা কাঠাল গাছ পরিবহনকালে মাটিরাঙ্গার গাজিনগরে বিজিবি বাঁধা প্রদান করে। একসময় গাছগুলো বিজিবি নিজেদের ক্যাম্পে নিয়ে যেতে চাইলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে বিজিবি এলোপাথারী গুলি করে। এসময় ঘটনাস্থলেও মারা যান সাহাব মিয়া প্রকাশ মুছা মিয়া ও তার ছেলে মো. আকবর আলী। এ সময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বিজিবি সদস্য শাওন খান, স্থানীয় আহাম্মদ আলী, মফিজ মিয়া এবং মো. হানিফ মিয়াকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেই মারা যান সাহাব মিয়ার আরেক ছেলে আহাম্মদ আলী ও বিজিবি সদস্য শাওন খান। এদিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান আহাম্মদ আলীর শ্বশুর মো. মফিজ মিয়া।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বিজিবি’র, বিরুদ্ধে, মাটিরাঙ্গায়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × three =

আরও পড়ুন