মাটিরাঙ্গা উপজেলার শ্রেষ্ঠ ‘প্রধান শিক্ষক’ মো. মাসুদ পারভেজ

fec-image

প্রাথমিক শিক্ষা পদকের লড়াইয়ে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার গেলবারের শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষকসহ অপরাপর প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে মাটিরাঙ্গা উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন দুর্গম গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মাসুদ পারভেজ।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভীষণ কান্তি দাশ‘র নেতৃত্বে বোর্ডে সাক্ষাতকার গ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে শ্রেষ্ঠ ‘প্রধান শিক্ষক’ হিসাবে তার নাম ঘোষণা করেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মনিরুজ্জামান।

মাটিরাঙ্গা উপজলোর সেরা ‘প্রধান শিক্ষক’ হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার বিষয়ে মো. মাসুদ পারভজে বলনে, ‘এ অর্জন আমার একক কোনো কৃতিত্ব নয়। বিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের ভালোবাসা এবং সহকর্মীদের সহযোগিতায় আমি এ সাফল্য অর্জন করেছি।’

তিনি বলেন, যোগদানের পর থেকেই গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমকি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় আগ্রহ আমাকে অভিভুত করে। আমি শিক্ষকদের নিয়মানুবর্তিতা ও পারস্পারিক সহযোগিতার মনোভাব দেখে কাজে উদ্বুদ্ধ হই। দুর্গম পাহাড়ি পল্লীর একটি বিদ্যালয়কে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্য থেকে এ বিদ্যালয়ে কাজ করে যাচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

মো. মাসুদ পারভেজ ২০০৩ সালে সহকারী শিক্ষক হিসেবে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই শিক্ষার গুনগত মান নিশ্চিত করার পাশাপাশি বনানয়নেও দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন তিনি। কর্মরত শিক্ষকদের আন্তরিকতায় ঝড়েপড়া রোধ করে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়মুখী করতে সফলতার পরিচয় দিয়েছেন বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক মো. মাসুদ পারভেজ।

বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের মাঝে তথ্যপ্রযুক্তির আলো ছড়িয়ে দিতে ইতিমধ্যে সকল শিক্ষকই ব্যক্তি উদ্যোগে ল্যাপটপ ক্রয় করেছেন। বর্তমানে ৫ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত অর্ধয়নরত শিক্ষার্থীদের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। শিক্ষার্থীদের মাঝে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার ছড়িয়ে দিতে উপজেলার কোন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে এটিই একমাত্র স্কুল।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: মাটিরাঙ্গা, শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − three =

আরও পড়ুন