মানিকছড়িতে এক বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ২১ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার

fec-image

৪র্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে মানিকছড়িতে এক বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী, ১ জন সংরক্ষিত প্রাথী ও ১৯ জন সাধারণ সদস্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। বিনা ভোটে এক চেয়ারম্যান ও ৯ জন সাধারণ সদস্য জনপ্রতিনিধি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে গেলেন।

উপজেলার ৩ ইউপি’র নির্বাচনে গত ২৫ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন দলীয়(নৌকা), ২ জন বিদ্রোহী ও ২ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী, সাধারণ সদস্য পদে ৯৬ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৩০ জনসহ মোট ১৩৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। বাছাইপর্বে ১ জন সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। গতকাল (৬নভেম্বর) মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে আওয়ামী লীগের একজন বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী, ১ জন সংরক্ষিত ও ১৯ জন সাধারণ সদস্য প্রার্থী তাঁদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন।

ফলে মানিকছড়ি ইউপিতে নৌকা প্রতীকে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান ফারুক, বিদ্রোহী হিসেবে দলের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য যোগ্য মারমা ও স্বতন্ত্র হিসেবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. জামাল উদ্দনি(হাতপাখা)।  ২নং বাটনাতলী ইউপিতে নৌকা প্রতীকে-মো. আবদুর রহিম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মংসাপ্রূ মারমা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এবং ৪ নং তিনটহরীতে বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম আনোয়ার হোসেন ভূইঁয়া মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হচ্ছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ।

সাধারণ সদস্য পদে মানিকছড়ি ইউপিতে ৩৬ জন প্রার্থীর মধ্যে ৪ জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন, ৫নং ওয়ার্ডে মো. কামাল হোসেন, ৬নং ওয়ার্ডে মো. আবদুর রহিম ও মো. ফারুক মিয়া এবং ৯নং ওয়ার্ডে মাওলানা আবদুল মচজদ নিজামী। এখানে সংরক্ষিত সদস্য প্রার্থী ১৩ জন।

২নং বাটনাতলী ইউপিতে ২৯ জন সাধারণ সদস্য প্রার্থীর মধ্যে ৭ জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন, ৪নং ওয়ার্ডে মো. কামাল হোসেন, ৫নং ওয়ার্ডে মোহাম্মদ সুরুজ মিয়া, ৬নং ওয়ার্ডে মো. আবদুল করিম ও মো. সামছুল ইসলাম, ৭নং ওয়ার্ডে মো. হানিফ মিয়া, ৮নং ওয়ার্ডে লাব্রেচাই মারমা, ৯নং ওয়ার্ডে বরেন্দ্র ত্রিপুরা। এখানে সংরক্ষিত সদস্য প্রার্থী ৭ জন।

৪নং তিনটহরী ইউপিতে ৩১জন সাধারণ সদস্য প্রার্থী ৮জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন, ৪নং ওয়ার্ডে মো. রমজান হোসেন, মো. আবদুল করিম, মো. ফারুক হোসেন, আলী আশ্রাফ, ৭নং ওয়ার্ডে মোহাম্মদ আলী, আবুল হাশেম ও ক্যজাই মারমা, ৯নং ওয়ার্ডে মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। সংরক্ষিত পদে মরিয়ম বেগম প্রত্যাহার করায় এখন প্রার্থী ৮ জন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শওকত আলী চৌধুরী বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ৪র্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন (সোমবার) একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী এসএম আনোয়ার হোসেন ভূইঁয়া, একজন সংরক্ষিত মরিয়ম বেগম ও ১৯ জন সাধারণ সদস্য প্রার্থী তাঁদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। কাল মঙ্গলবার প্রার্থীত সকল প্রার্থীকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + 15 =

আরও পড়ুন