মানিকছড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যা

fec-image

মানিকছড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে এক সন্তানের জননী নাছিমা আক্তার (২৪) আত্মহত্য করেছে। ঘটনা সন্দেহজনক হওয়ায় ইউডি মামলাসহ লাশ ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ফটিকছড়ির বাগানবাজার এলাকার মো. মনির হোসেন এর এক ছেলে ও তিন কন্যার মধ্যে দ্বিতীয় সন্তান নাছিমা আক্তারের সাথে পারিবারিকভাবে ২০১৫ সালে বিয়ে হয় মানিকছড়ি পাক্কাটিলার মো. গোলাম মোস্তফার ছেলে মো. আবুল কালামের। তাদের সংসারে ৬ বছরের নাজমুল হোসেন এক শিশু সন্তান রয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) বিকালে পরিবারের অন্য সদস্যদের অগোচরে গৃহিনী নাছিমা আক্তার (২৪) ঘরের সিলিং এ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। দীর্ঘক্ষণ নাছিমার সাড়াশব্দ না পেয়ে পরিবারের লোকজন নাছিমাকে খুঁজতে গিয়ে দেখেন ঘরের শয়ন কক্ষে সিলিংয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে নাছিমা। পরে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লোকজনের উপস্থিতিতে লাশ উদ্ধার করেন। গৃহিনীর শ্বশুর পক্ষ ও পিতৃপক্ষের বক্তব্য নিয়ে পুলিশ বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করে লাশ মর্গে পাঠিয়েছে।

এদিকে নিহতের নিকটাত্মীয় মো. মাহাবুব বলেন, নাছিমার মৃত্যুর ঘটনার মূলকারণ অনুসন্ধানে পুলিশ খুব আন্তরিক হয়ে কাজ করছে।

অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহনূর আলম জানান, গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যার ঘটনাটির প্রকৃত তথ্য ও রহস্য জানতেই ইউডি মামলা নিয়ে লাশ ময়নাতদন্তে প্ররণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + seven =

আরও পড়ুন