আপডেইট

মানিকছড়িতে বন্দুকযুদ্ধে সেনা অফিসার ও ইউপিডিএফ সন্ত্রাসী গুলিবিদ্ধ: এসএমজি উদ্ধার

fec-image

মানিকছড়ি উপজেলার গহীন অরণ্যখ্যাত কুমারী, বটটিলা, নতুনপাড়া, মাস্টার পাড়া ও চাইল্যারচর এলাকার একটি পাহাড়ে ইউপিডিএফ সন্ত্রাসী ও সেনাবাহিনীর মধ্য দেড় ঘন্টাব্যাপি বন্দুকযুদ্ধ চলছে। এতে লক্ষ্ণীছড়ি জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর মো. আনিসুর রহমান গুলিবিদ্ধ।

পুলিশ ও বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার গহীন অরণ্যখ্যাত কুমারী, বটটিলা, নতুনপাড়া, মাস্টার পাড়া ও চাইল্যারচর এলাকার একটি পাহাড়ে ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের সশস্ত্র অবস্থা টেঁর পেয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী লক্ষ্ণীছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে ওই এলাকাটি ঘিরে ফেলে।

সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীর অবস্থান নিশ্চিত হয়ে বিকাল ৫.১৫ মিনিট থেকে সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে এলোপাতারী গুলিবর্ষণ করতে থাকলে সেনাবাহিনীর সদস্যরাও পাল্টাগুলি চালায়। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গোলাগুলি অব্যাহত ছিল।

এ ঘটনায় লক্ষ্ণী ছড়ি জোনের উপ-অধিনায়ক মো. আনিসুর রহমানকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সন্ধ্যা ৬.৫০ মিনিটে তাকে মানিকছড়ি হাসপাতালে আনা হয়েছে। তার পায়ে গুলি লেগেছে। এসময় নিরাপত্তা বাহিনী এক ইউপিডিএফ সদস্যকে পেটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক করেছে। তার কাছ থেকে একটি একে-৪৭ রাইফেল, ২৬ রাউন্ড গুলি ও একটি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়েছে।

এ মূহূর্তে সংঘর্ষ থেমে গেলেও ঘটনাস্থলে সেনা অভিযান চলছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মানিকছড়ি থানার অফিসার(তদন্ত) মো. মাসুদ করীম ঘটনার সত্যতা স্বীকার বলেন, এ ঘটনায় একজন সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মানিকছড়ি হাসপাতালে আনা হয়েছে। চিকিৎসা চলছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মো. মহিউদ্দীন আহত সেনাকর্মকর্তার চিকিৎসার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ইউপিডিএফের সংগঠক অংগ্য মারমা এক বিবৃতিতে এ ঘটনার সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততা অস্বীকার করে জানিয়েছে তাদের সংগঠনের সাথে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তির সাথে ইউপিডিএফের কোন সম্পৃক্ততা নেই বলেও দাবী করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বন্দুকযুদ্ধ, সেনা অফিসার গুলিবিদ্ধ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + 14 =

আরও পড়ুন