মানিকছড়িতে ভিজিডি’র চাল সরবরাহে অনিয়ম ‘ওসিএলএসডি’র দুঃখপ্রকাশ!

fec-image

মানিকছড়িতে ভিজিডি’র এপ্রিল মাসের বরাদ্দকৃত চাউল গুদাম থেকে সরবরাহকালে ডি.ও’র আদেশ অমান্য করে সুবিধাভোগীর চাহিদাকে অগ্রাধিকার দিয়ে আতপ এর পরিবর্তে সিদ্ধ চাউল সরবরাহ করায় জনমনে বিভ্রান্তির জন্য দুঃখপ্রকাশ ও বিষয়টি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ জানিয়ে শোকজের জবাব দাখিল করেছেন ‘ওসিএলএসডি’ মো. শামীম উদ্দীন।

সরজমিন ও বরাদ্দপত্র অনুসন্ধানে দেখা গেছে, সরকার দেশব্যাপী দুস্থ মহিলাদের উন্নয়নে(ভিজিডি) কর্মসূচীর আওতায় মানিকছড়ি উপজেলার ৪ ইউপিতে সুবিধাভোগী এক হাজার ৪ শত ৬৪ জনের মধ্যে এপ্রিল মাসের ডি.ও’র ছাড়পত্রের আদেশ অমান্য করে আতপের পরিবর্তে সিদ্ধ চাউল সরবরাহের ঘটনায় জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। ফলে এ নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ পরিবেশিত হলে ঘটনার সত্যতা অনুসন্ধানে সরজমিন তদন্ত করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না মাহমুদ।

তদন্তাকালে দেখা যায়, এপ্রিল মাসের ভিজিডি’র ছাড়পত্রের আদেশে( ডিও নং ৬৫৩৯১৬৮-৬৫৩৯১৭১) আতপ চাউল লেখা থাকলেও বাস্তবে সরবরাহ হয়েছে সিদ্ধ চাউল। প্রথমে ওসিএলএসডি ছাড়পত্র অনুযায়ী আতপ চাউল ছাড় করার বিষয়ে বক্তব্যে অনড় থাকায় এ নিয়ে ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়। গুদাম থেকে যদি আতপ চাউল সরবরাহ করা হয়, তাহলে ইউপি’র গোডাউনে সিদ্ধ চাউলের স্টক এলো কোথেকে? ফলে এ নিয়ে বিভ্রান্তির নিরসন ও রহস্যে উদঘাটনে ১৯ এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি তামান্না মাহমুদ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জুলিয়াস চাকমা’র নিকট লিখিত জবাব তলব (শোকজ/কারণ দর্মানোর নোটিশ) করেন।

পরে খাদ্য নিয়ন্ত্রক জুলিয়াস চাকমা তার অধিনস্থ ও গুদামের রক্ষক ওসিএলএসডি মো. শামীম উদ্দীনের কাছে এ বিষয়ে ব্যাখা তলব (শোকজ/কারণ দর্মানোর নোটিশ) করেন। তিন কার্যদিবসে শোকজের জবাব দাখিলের শেষ দিন ২২ এপ্রিল ওই শোকজের লিখিত জবাব দাখিল করেছেন ওসিএলএসডি মো. শামীম উদ্দীন।

লিখিত জবাবে ওসিএলএসডি মো. শামীম উদ্দীন ভিজিডি’র এপ্রিল মাসের খাদ্যশস্য সরবরাহে সৃষ্ট বিভ্রান্তির ব্যাখায়/শোকজের জবাবে বলেন, ভিজিডি’র খাদ্যশস্য বিতরণে স্থানীয় উপকারভোগীদের চাহিদানুযায়ী ইউপি চেয়ারম্যান/সচিবগণ এলাকাভিত্তিক আতপ ও সিদ্ধ চাউল নিয়ে অভ্যস্ত। সে আলোকে সরল মনে আমি (মো. শামীম উদ্দীন) ডি.ও’র তথ্য রেকর্ডপত্রে ঠিক রেখে মোট ১৪৬৪ জন সুবিধাভোগীর অনুকূলে সংশ্লিষ্ট ইউপি’র চাহিদামতে আতপ ও সিদ্ধ চাউল গুদাম থেকে ডি.ও জারী করি। সে মোতাবেক চেয়ারম্যানদের প্রতিনিধিরা (সচিব) চাউল বুঝে নেয়। এই অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্যও তিনি দুঃখপ্রকাশ করে বিষয়টি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না মাহমুদ শোকজের জবাব প্রাপ্তির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওসিএলএসডি এই ঘটনার জন্য দুঃখপ্রকাশ করে বিষয়টি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ করে জবাব দাখিল করেছেন। ওসিএলএসডি তার জবাবে বলেছেন. মাহে রমজান মাস হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানগণ এলাকাভিত্তিক ভিজিডি’র সুবিধাভোগীদের চাহিদানুযায়ী আতপ ও সিদ্ধ চাউল সরবরাহে অনুরোধ করায় আমি তাদের চাহিদাকে অগ্রাধিকার দিয়ে আমি সহজ-সরল মনে আতপ ও সিদ্ধ চাউল সরবরাহ করেছি। এই অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

ভিজিডি’ বিতরণে আতপ এবং সিদ্ধ নিয়ে বিতর্ক ছাড়া অন্য কোন অনিয়ম প্রমানিত না হওয়ায় তাকে (ওসিএলএসডি) মো. শামীম উদ্দীনকে সতর্ক করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + 1 =

আরও পড়ুন