মানিকছড়িতে রাত পোহালেই ভোট: সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

fec-image

খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি’র তিন ইউপি’তে রাত পোহলেই চতুর্থ ধাপের ভোট। এখানাকার তিন ইউপি’র মধ্যে একটিতে বিনা ভোটে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পথে রয়েছে। অন্য দু’টিতে দলীয়প্রার্থীর পাশাপাশি বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্রপ্রার্থীরা ভোট গ্রহনে সরকারি দলের হস্তক্ষেপের শঙ্কা প্রকাশ করলেও নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা জয়ের বিষয়ে শতভাগ আশাবাদী। নির্বাচনী মাঠ উত্তপ্ত থাকায় প্রশাসন ২৭ কেন্দ্রের মধ্যে ১৮টিকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে পর‌্যাপ্ত  নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছেন। তিন ইউপি’র মধ্যে সদর ইউপিতে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে। মানিকছড়ি ইউপিতে ভোটার ১৭ হাজার ৩২৫ জন। তিনটহরীতে ১১ হাজার ৭৩৭ জন ও বাটনাতলী ইউপিতে ১০ হাজার ৩৪১  জন।

উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শওকত আলী চৌধুরী পার্বত্য নিউজকে জানান, উপজেলার তিন ইউপি’র মধ্যে সদর ইউপিতে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হবে। আর অন্য দুইটি মধ্যে তিনটহরী ইউপিতে বিনা ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পথে রয়েছেন। এখানে চেয়ারম্যান পদে দলীয় ৩ জন ও স্বতন্ত্র ২ জন। সংরক্ষিত সদস্য পদে ২৯ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৬৮ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিন ইউপি’র ২৭টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে সকল প্রস্তুতি নিয়েছে প্রশাসন।

চেয়ারম্যান হিসেবে সদর ইউপিতে মো. শফিকুর রহমান ফারুক(নৌকা), মো. জামাল উদ্দীন(হাতপাখা), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী যোগ্য মারমা (আনারস)। বাটনাতলীতে মো. আবদুর রহিম(নৌকা), স্বতন্ত্র মংসাপ্রূ চৌধুরী( চশমা)। তিনটহরী ইউপিতে বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন নৌকা প্রতীকের মো. আবুল কালাম আজাদ। অপর দিকে তিন ইউপিতে সংরক্ষিত সদস্য পদে ২৯ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৬৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

২৫ ডিসেম্বর দুপুর ১২টা থেকে ৪টার মধ্যে সকল প্রিসাইডিং,সহকারী প্রিসাইডিং ও পোলিং কর্মকর্তারা ভোটের মালামাল নিয়ে নিরাপত্তা সহকারে কেন্দ্রে পৌঁছান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)তামান্না মাহমুদ নিরাপত্তার বিষয়ে পার্বত্য নিউজকে জানান,  চতুর্থধাপের নির্বাচনে এই উপজেলার তিনটি ইউপিতে শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু-সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহনে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণসহ ২৭টি কেন্দ্র প্রশাসনের কড়া নজরদারীতে রাখা হয়েছে। কেন্দ্রে ১৭ জন আনসার ভিডিপি সদস্য ও ৬ জন পুলিশএর পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নিদের্শনায় কাজ করবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 16 =

আরও পড়ুন