আপডেট

মানিকছড়িতে সেনাবাহিনীর অভিযানে অস্ত্রসহ ৩ ইউপিডিএফ সন্ত্রাসী আটক

fec-image

রামগড় সীমান্তবর্তী জনপদে সেনাবাহিনীর অভিযানে এলজি, কার্তুজ, মোবাইল ফোন, চাঁদাবাজির রশিদ, নগদ টাকা ও উদ্ধারকৃত সরঞ্জামাদিসহ ইউপিডিএফ‘র ৩ সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়েছে।

সেনাবাহিনী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মানিকছড়ি-রামগড় উপজেলার সীমান্তবর্তী জনপদ মরাকয়লা, লিপিপাড়া, থলিবাড়ি, নাভাঙ্গা ও গরু কাটা এলাকায় ইউপিডিএফ (মূল) প্রসীত খীসার সশস্ত্র গ্রুপ আধিপত্য বিরাজ করে জনপদে নানা অপকর্ম করে আসছিল। ফলে ওইসব জনপদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত বাটনাতলী সেনাক্যাম্পের সেনাসদস্যরা প্রতিনিয়ত সন্ত্রাসী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনাসহ টহল জোরদার অব্যাহত রাখেন।

ফলে মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দিবাগত রাত ৩টার পর গোপন সংবাদে ক্যাম্প কমান্ডার ক্যাপ্টেন মো. ওয়ালি উল্লাহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযানে গিয়ে রামগড়ের পাতাছড়া ইউপি’র গরু কাটা এলাকায় ইউপিডিএফ সন্ত্রাসী অনিল চাকমার ঘরে হানা দিয়ে ৩ উপজাতি যুবক রকি ত্রিপুরা (২০), পিতা- সবি কুমার ত্রিপুরা, জরিচন্দ্র পাড়া, রামগড়, জুয়েল ত্রিপুরা(২৩), পিতা- দুলা ত্রিপুরা, রাজেন্দ্র কার্বারীঢপাড়া, দীঘিনালা ও  সাথোঅং মারমা(৩০), পিতা- উলাঅং মারমা, দেওয়ান পাড়া, গুইমারাকে ১টি এলজি, ২টি কার্তুজ, ৮টি মোবাইল ফোন, ১৬টি চাঁদা আদায়ের রশিদ বই, নগদ ৩২ হাজার ৫শত ৬০ টাকা, ৩টি জমির দলীল, ইউপিডিএফ এর আয়-ব্যয়ের ৯টি রশিদ বই, সংগঠনের নীতিমালা বই ৬টিসহ হাতে-নাতে তাদের আটক করতে সক্ষম হন।

বুধবার (৭ অক্টোবর) দুপুর নাগাদ আটক সন্ত্রাসী ও উদ্ধারকৃত সকল মালামালসহ প্রথমে মানিকছড়ি সেনা ক্যাম্পে নিয়ে এসে উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও মালামাল এবং সন্ত্রাসী আটকের বিবরণ তুলে ধরেন ক্যাম্প কমান্ডার ক্যাপ্টেন মো. ওয়ালি উল্লাহ।

রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শামসুজ্জামান বলেন, বুধবার ভোররাতে গরুকাটা এলাকায় যৌথ অভিযানে অস্ত্রসহ আটক ইউপিডিএফের তিন সন্ত্রাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বুধবার বিকালে রামগড় থানায় হস্তান্তর করেছে সেনাবাহিনী। তিনি বলেন, এদের বিরুদ্ধে থানায় অস্ত্র ও চাঁদাবাজি আইনে মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আটক, ইউপিডিএফ, সেনাবাহিনী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + fourteen =

আরও পড়ুন