মিয়ানমারকে ২৫ হাজার রোহিঙ্গার নতুন তালিকা দিল বাংলাদেশ

fec-image

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে প্রত্যাবাসনের আগে যাচাইয়ের জন্য ২৫ হাজার রোহিঙ্গার নতুন একটি তালিকা মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করেছে বাংলাদেশ।

ঢাকায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় সোমবার মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে এক বৈঠক শেষে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব কামরুল আহসান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনিই বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন; আর মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন দেশটির পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে।

নতুন তালিকায় যে রোহিঙ্গাদের নাম এসেছে, তারা ছয় হাজার পরিবারের সদস্য। ২০১৭ সালের নভেম্বরে প্রত্যাবাসন চুক্তি হওয়ার পর সব মিলিয়ে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গার তথ্য মিয়ানমারকে যাচাই বাছাইয়ের জন্য দিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে থাকা একজন রোহিঙ্গাও মিয়ানমারের রাখাইনে তাদের ভিটায় ফিরে যেতে পারেনি।

তবে দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আসছে সেপ্টেম্বরেই রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো শুরু করা যাবে বলে এখন আশা করছে সরকার।

কামরুল আহসান প্রত্যাবাসন শুরু করতে এই বিলম্বের জন্য ‘আস্থার সঙ্কটকেই’ সবচেয়ে বড় কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

তিনি বলেন, “এটা ছিল মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের এ ধরনের প্রথম সফর, যেখানে তারা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেছেন, তাদের সমস্যার কথা শুনেছেন।”

ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব বলেন, রোহিঙ্গাদের প্রথম দাবি মিয়ানমারে তাদের নাগরিকত্ব। তারপর তারা চলাফেরার স্বাধীনতা, অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের স্বাধীনতা এবং নিজেদের ভিটেমাটিতে ফিরে যাওয়ার নিশ্চয়তা চায়।

“এক সফরে সব সমস্যার সমাধান হবে না। তাদের (মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের) আরও বেশ কয়েকবার আসতে হবে, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে, যাতে তাদের মধ্যে আস্থা সৃষ্টি হয়। আমরা জোর করে কাউকে ফেরত পাঠাব না।”

কামরুল আহসান জানান, এর আগে দুই দফায় যে ৩০ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছিল, তার মধ্যে ৮ হাজার রোহিঙ্গার পরিচয় যাচাইয়ের কাজ মিয়ানমার শেষ করেছে।

“এই আট হাজার রোহিঙ্গা এখন চাইলে যে কোনো সময় তাদের দেশে ফিরে যেতে পারেন।”

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × two =

আরও পড়ুন