মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন স্তম্ভ হিসেবে বেঁচে থাকবে বাংলার মাটিতে: পার্বত্যমন্ত্রী

fec-image

ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।

মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) বান্দরবান জেলা পরিষদ চত্বরে ১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ উদ্বোধনের পর আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, যারা ইতিহাস বিকৃতির সাথে জড়িত, যারা অমুক্তিযোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধার সনদ প্রদান করেছে তারা ইতিহাসের সাথে প্রতারণা করেছে। তাদেরকে চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাশৈহ্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার জেরিন আখতার, জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম কাউসার, সিভিল সার্জন ডা. অংসৈ প্রু প্রমখ।

জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন স্মৃতিস্তম্ভটিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়কার গৌরব গাঁথা ইতিহাস সুনিপুণভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

প্রায় তিন বছর সময় লেগেছে স্মৃতিস্তম্ভটি তৈরি করতে। এটির নকশা করেছেন ঢাকার আর্ক ট্রেভ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের ৪ স্থপতি।

এদের মধ্যে ইমরুল ইসলাম দুর্রানী জানিয়েছেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সেই সাথে পার্বত্য বান্দরবানের ১১টি নৃগোষ্ঠীসহ বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতি ঐতিহ্য স্মৃতিস্তম্ভটিতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পার্বত্যমন্ত্রী, বান্দরবান, মুক্তিযোদ্ধা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − three =

আরও পড়ুন