মৃত্যু ও ক্ষতি কমাতে হাতির অভয়ারণ্য জরুরী

fec-image

বান্দরবানের লামায় হাতির চলাচল করিডোর নষ্ট হওয়ায় প্রায় সময় বন্য হাতির দল লোকালয়ে ছুটে আসে বলে জানিয়েছেন লামা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস. এম কায়চার। লামায় বিভিন্ন সময় বন্য হাতির আক্রমনের শিকার হয়ে মৃত্যু বরণকারী ও ক্ষতিগ্রস্তদের স্বজনদের মাঝে সরকারি ক্ষতিপূরণ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিভাগীয় এই বন কর্মকর্তা বলেন, গহীন বনে খাদ্যাভাব ও নিরাপদ আবাসস্থল হারিয়ে প্রায় সময় বন্য হাতির পাল লোকালয়ে ছুটে আসছে। ধ্বংস করছে ঘর বাড়ি বাগান ও আবাদি জমির ফসল। হাতির আক্রমনের শিকার হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন নিরীহ নারী-পুরুষ ও শিশুরা। তিনি বলেন, এর কারণে হাতির অবাধ বিচরণ ও নিরাপদ বাসস্থানের জন্য অভয়ারণ্য গড়ে তোলা জরুরী।

মঙ্গলবার (২৯ জুন) বেলা সাড়ে এগারটায় লামা বিভাগীয় বন কর্মকর্তার কার্যালয়ে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের হাতে চেক তুলে দেন লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রেজা রশিদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ফাতেমা পারুল, সহকারী বন কর্মকর্তা মো. মঞ্জুরুল ইসলাম ও সরই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফরিদুল আলমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মীরা।

এদিন আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলার সদর ও ডলু রেঞ্জের ক্ষতিগ্রস্ত ৭০ পরিবারের হাতে মোট ২০ লক্ষ ৫২ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − thirteen =

আরও পড়ুন