রাঙামাটি করাতকল সমিতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ

fec-image

রাঙামাটি করাতকল সমিতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে রাঙামাটি করাতকল ও কাঠ পরিবহন শ্রমিক বহুমুখী সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার (১ জুলাই) বিকেলে শহরের ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউট হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের সভাপতি মো. মমতাজ মিয়া, সহ-সভাপতি মো. সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রবিণ বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. নাজিম উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক বাপ্পু রায়হানসহ সংগঠনটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সভায় বক্তারা বলেন- বর্তমানে মো. ইব্রাহীম, ইয়াকুব আলী, আলমগীর, আলাউদ্দীন ও শাহজাহান মিলে জেলা সমবায় অফিসে অত্র সমিতির নামে দুর্নীতি ও সদস্যপদ ব্যাপারে অভিযোগ করলে গত ২৭ জুন জেলা সমবায় কর্তৃপক্ষ অভিযোগের বিষয়ে সরাসরি সমিতি অফিসের সকল ডকুমেন্ট যাচাই- বাছাই ও পরিদর্শন করেন ।

তার মধ্যে মো. শাহজাহান অভিযোগ করেন যে , অত্র সমিতির ১৭১ জন্য সদস্য অবৈধ ও তাদের বাতিল করতে হবে মর্মে গত ২৮ মে দৈনিক নতুন বাংলাদেশ পত্রিকায় সমিতির সদস্য ভর্তি , দুর্নীতি ও ক্রয় – বিক্রয় সদস্যপদ বাতিল করেছি বিষয়ে ছাপানো হয় । কিন্তু প্রকৃতপক্ষে আমরা বর্তমান কার্যকরী কমিটি শ্রমিক ব্যতিত কাউকে ভর্তি বা সদস্যপদ হস্তান্তর করিনি । যেসকল সদস্যপদ হস্তান্তর করেছে তাহা পূর্বের কমিটিই করেছে । তাদের বক্তব্য অনুসারে ১৭১ জন সদস্যকে বাতিল করতে হবে । কিন্তু আগে যারা হস্তান্তরের মাধ্যমে অত্র সমিতিতে সদস্যপদ লাভ করেছে তাহার সকল ধরণের পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তি রয়েছে ।

কিন্তু সদস্যপদ হস্তান্তর নিয়ে তাহাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই , যদি কোন অভিযোগ পাওয় যায় , সেক্ষেত্রে অভিযোগের কারণ পূর্বের ন্যায় খতিয়ে দেখা হবে। তারা আরও বলেন, কার্যকরী কমিটি কর্তৃক অত্র সমিতির সার্বিক উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ, সমিতির চলমান সুনামকে ক্ষুন্ন করে নির্বাচন কার্যক্রম বন্ধ করার জন্য কিছু ব্যক্তি সমিতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে চলেছে । কিন্তু গন্যমাধ্যমে মো. শাহজাহান এর অভিযোগের প্রেক্ষিতে দেখা যায় , বিগত আহবায়ক কমিটি ৩৩৯ জন সদস্য নিয়ে নির্বাচন কার্যক্রম সম্পন্ন করেন।

মো. শাহজাহানের অভিযোগের আলোকে যদি ১৭১ জন্য সদস্য অবৈধ হয় , তাহলে কি ? ১৬৮ জন সদস্য নিয়ে অত্র সমিতি গঠিত ? আরো উল্লেখ্য যে , মো. শাহজাহান ৪৯ ধারা তদত্তের বাদী ছিল । আর ৪৯ ধারার তদন্তের রিপোর্ট অনুসারে পাওয়া যায় ২৯/০৭/২০১৮ সালে অথচ ১৭১ জনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছিল তাহা ২০১৫ সালে আগে অত্র সমিতির সদস্যপদ লাভ করেন । এসময় উপস্থিত ছিলেন, করাতকল ও কাঠ পরিবহন শ্রমিক বহুমূখী সমবায় সমিতির সভাপতি মো. মমতাজ মিয়া, সহ সভাপতি সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven − one =

আরও পড়ুন