রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে প্রস্তুতি সম্পন্ন: পৌঁছানো হয়েছে ২৮টি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জামাদি

পৌরসভা নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার:

৩০ ডিসেম্বর রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ ভোটগ্রহণে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন ও নির্বাচন কর্তৃপক্ষ। এ লক্ষে নির্বাচন সংক্রান্ত এক জরুরি আদেশ জারি করেছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. সামসুল আরেফিন।

মঙ্গলবার সকালে রাঙামাটি জেলা রিটানিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মোস্তফা জামান কেন্দ্রের ২৮জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের হাতে নির্বাচনের ব্যালট পেপার, ব্যালট বক্সসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম তুলে দেন। তাছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিপি) ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী ও পুলিশ সদস্যরা কড়া নিরাপত্তায় স্ব-স্ব কেন্দ্রে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে রাঙামাটি রির্টানিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো.মোস্তফা জামান বলেন, রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচন প্রভাবমুক্ত, অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে শহরে সব ধরনের নিরাপত্তা জোরদারের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নির্বাচনে সুষ্ঠু ভোটগ্রহণে অতিরিক্ত নিরাপত্তাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া ২৯ ডিসেম্বর মধ্যরাত ১২টা হতে ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত এ পৌর এলাকায় অটোরিকশা, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পো যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

তিনি আরও বলেন, এ পৌর এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র বা স্পর্শকাতর এলাকা বলতে তেমন কোনো কিছুই নেই। তবে কেউ যদি কোনো নাশকতা বা প্রতিকূলতার সৃষ্টির চেষ্টা চালায় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বহিরাগতদের ব্যাপারে কঠোর গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে বলে জানান রিটানিং কর্মকর্তা। নির্বাচন রিটানিং অফিসার আরো জানান নির্বাচনী সকল সরঞ্জাম এসে পৌছে গেছে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে স্ব-স্ব কেন্দ্রে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

অন্যদিকে, রাঙামাটি শহরে র‌্যাব ও বিজিবি টহল জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনী এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালতের কাজ করছে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটদের বেশ কয়েকটি টিম।

জেলা প্রশাসনের আদেশে বলা হয়েছে, ২৮ ডিসেম্বর মধ্যরাত ১২টা হতে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত এ নির্বাচনী এলাকায় কোন ব্যক্তি জনসভা, অনুষ্ঠান বা তাতে যোগদান এবং কোনো মিছিল বা শোভাযাত্রার আয়োজন করতে পারবেন না। এছাড়া নির্বাচন প্রভাবমুক্ত, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানে সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে হোটেলে অবস্থানকারী বহিরাগতদের অবস্থান ত্যাগ করে চলে যেতে বলা হয়েছে আদেশে।

তাছাড়া ৩০ ডিসেম্বর এ পৌরসভার নির্বাচনে ভোটাররা কেউ মোবাইল ফোন নিয়ে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। এ বিষয়ে সবাইকে সতর্কতা অবলম্বনের জন্য অনুরোধ করা হয়। আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা গেছে, রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে সর্বশেষ পাঁচ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের আকবর হোসেন চৌধুরী (নৌকা), বিএনপির সাইফুল ইসলাম চৌধুরী ভূট্টো (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির শিব প্রসাদ মিশ্র (লাঙ্গল), পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. গঙ্গা মানিক চাকমা (নারকেল গাছ) ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রবিউল আলম রবি (কম্পিউটার)।

এছাড়া ৯ ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর (পুরুষ) পদে ৩৯ এবং সংরক্ষিত (নারী) ৩ আসনে ৭ কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। জেলা নির্বাচন অফিস জানায়, এবার এ পৌরসভায় মোট ২৮টি কেন্দ্রে ভোট দেবেন ৫৮ হাজার ৩৯৭ ভোটার। তাদের মধ্যে পুরুষ ৩২ হাজার ১৬৯ এবং নারী ২৬ হাজার ২১৮ ভোটার। মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ১৯৩টি।

প্রসঙ্গত, এবার রাঙামাটি পৌরসভার ১৮তম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: নির্বাচন, নির্বাচন কমিশন, পৌরসভা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 − 4 =

আরও পড়ুন