রাজস্থলীতে প্রশংসা কুড়িয়েছেন ইউএনও শেখ ছাদেক

fec-image

পার্বত্য জেলা রাঙামাটির প্রত্যন্ত অঞ্চল রাজস্থলীতে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে গেছেন, রাজস্থলী উপজেলার নির্বাহী অফিসার শেখ ছাদেক। দুর্গম পাহাড়ি কৃষি নির্ভর এ উপজেলার উন্নয়ন মূলক কর্মকাণ্ড এবং জনসেবায় তিনি রেখেছেন অসংখ্য অবদান।

এলাকাবাসীর কাছ থেকে কুড়িয়েছেন প্রশংসার ফুল ঝুড়ি। তিনি কক্সবাজার জেলা থেকে বদলী হয়ে ২০১৮ সালের ৩১ অক্টোবর যোগদান করেন ৩০তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের এ কর্মকর্তা রাজস্থলী উপজেলার নির্বাহী অফিসার হিসেবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যলয়ে আলাপচারিতায় তুলে ধরেন তার সফলতা ও চ্যালেঞ্জিং অভিজ্ঞতার কথা।

তিনি সহজভাবে বললেন এ রাজস্থলী উপজেলা নিয়ে তার আরও অনেক পরিকল্পনা ছিল। দায়িত্বে থাকাকালীন তিনি এই এলাকার রাস্তাঘাট, ব্রীজ কালর্ভাট সহ অনেক উন্নয়ন কাজ করেছেন বলে এ প্রতিনিধিকে জানান। ৩নং বাঙালহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ঞেমং মারমার সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায়, পাহাড় ধস রোধে ঝুকিপূর্ন এলাকা পরিদর্শন, জমি সংক্রান্ত জটিলতায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন সহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানের মধ্যে ছুটে যেতেন তিনি।

অপর দিখে ২নং গাইন্দ্যা ইউপি চেয়ারম্যান উথান মারমা জানান, সরকারি সেবা নিতে এলে দ্রুত সময়ে কাঙ্খিত সেবা দেন। করোনাকালীন সময়ে তিনটি ইউনিয়নে ছুটে গিয়েছেন সরকারি ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দিতে। এ নিয়ে সেবা গ্রহীতারাও বেশ সন্তোষ প্রকাশ করেন বলেও জানান এলাকাবাসী। এমন কি রোজা রেখেও দুর্গম পাহাড় মারিয়ে ছুটে যান এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায়। সরকারি সকল সেবা পৌছে দিতে তিনি ছুটে যান জনসাধারণের দোড়গোড়ায়। ক্লান্তহীনভাবে নিরলস কাজ করেছেন পাহাড়ি বাঙ্গালী সহ সকল ধর্ম বর্ণ ও সকল শ্রেণির পেশার মানুষের জন্য।

দায়িত্বপালন করতে গিয়ে কোন প্রকার বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়েছে কিনা সে বিষয়ে জানতে চাইলে ইউএনও শেখ ছাদেক বলেন, রাজস্থলী অনেক সুন্দর একটি উপজেলা। এখানে পাহাড়ি বাঙ্গালীর মধ্যে সম্প্রীতির মিলন মেলায় পরিণত। এখানে কাজ করতে গিয়ে অনেক অভিজ্ঞতা হয়েছে। এখানে নানান শ্রেণি পেশার মানুষ বসবাস করে। কোন প্রকার বাঁধার সম্মুখীন নয়, বরং আমি সতস্ফুর্তভাবে কাজ করতে পেরেছি। আমি সৎভাবে নিজের কাজ ভেবে করে ফেলি কোন কাজ পেন্ডিং রাখি না। আমি সৎভাবে পরের উপকার হয় এমন কাজ করি।

সম্প্রতি ইউএনও শেখ ছাদেক পেশাগত জ্ঞান, ও দক্ষতা শততার নিদর্শন, নির্ভরযোগ্যতা কর্তব্যনিষ্ঠাসহ কর্মী সেবাগ্রহীতাদের সঙ্গে আচরণ তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারে পারদর্শীতা সহ সরকারী ও দাপ্তরিক বিভিন্ন কার্যক্রমে রাজস্থলীবাসী মুগ্ধ হয়েছে।

তিনি, ভিজিএফ, ভিজিডি, খাদ্য সহায়তা প্রদানে অগ্রণী ভুমিকা রেখেছেন। সারা বিশ্বে বৈশ্বিক কোভিট (১৯) মহামারী আকার ধারণ করেছে ইহা প্রতিরোধ করতে জনসাধরণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিয়মিত মাস্ক পরে চলার সচেতনামূলক পরামর্শ প্রদান করে আসছেন। রাজস্থলী উপজেলা নিয়েও জানালেন তার কিছু পরিকল্পনার কথা। এ উপজেলাটিকে পর্যটন বান্ধব হিসেবে উপস্থাপনে তার ছিল কিছু ব্যতিক্রমি উদ্যােগ। এ ছাড়া ট্রানজিট সড়ক যাহা নির্মাণ করতেছেন সেনাবাহীর ২৬ ই,সি,বি, রাজস্থলী টু থেগামুখ হয়ে সরাসরি মিজোরাম ভারত পৌছানো সম্ভব হলে এই এলাকার নতুন পর্যটন সম্ভাবনার দার উন্মোচন হবে। আর্থসামাজিক উন্নয়ন আসবে এ এলাকার পাহাড়ি বাঙ্গালী সবার মাঝে।

তিনি বলেন, আমি পদোন্নতি নিয়ে বান্দরবান জেলার জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে বদলী হয়েছি। তিনি যেখানে থাকবেন সময় পেলে ছুটে আসবেন এ উপজেলায় এমনটা জানালেন ইউএনও। তিনি পূর্ণ দায়িত্ব সফলভাবে পালন করে এ উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের আস্থা অর্জন করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + eighteen =

আরও পড়ুন