রাজাপালং ও পালংখালীর আংশিক রেড জোন, সোমবার থেকে লকডাউন

fec-image

কক্সবাজার উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ২, ৫, ৬ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং পালংখালী ইউনিয়নের ১, ৪, ৭ ও ৯ নং ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ হিসাবে ঘোষণা করা হচ্ছে। এসব এলাকায় আগামী ৮ জুন সোমবার রাত ১২টা থেকে পরবর্তী ১৪ দিনের জন্য কঠোরভাবে লকডাউন (Lockdown) কার্যকর করা হবে। কক্সবাজার জেলা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির পরামর্শ ও নির্দেশনা অনুযায়ী এসব এলাকায় লকডাউন কার্যকর করা হবে। উখিয়ার ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উখিয়া উপজেলা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও উখিয়ার ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী এর সভাপতিত্বে শনিবার ৬ মে অনুষ্ঠিত সভায় ম্যাপিং করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী আরও জানান, ম্যাপিং করতে গিয়ে পালংখালী ইউনিয়নে রোহিঙ্গা করোনা আক্রান্ত শরনার্থীরাও এসে যায়। তাই পালংখালী ইউনিয়নে ম্যাপিং টা একটু সংশোধন করা হচ্ছে। সংশোধনের পরই পালংখালী ইউনিয়নের রেড জোন হিসাবে ওয়ার্ড গুলো পূণঃ নির্ধারণ করা হবে।

উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ও পালংখালী ইউনিয়নের উল্লেখিত অংশ আশঙ্কাজনক হারে করোনা সংক্রমন হওয়ায় এসব এলাকা ও পরিবার গুলো করোনা ভাইরাস এর অতিমাত্রায় ঝুঁকিতে রয়েছে। তাই এসব এলাকা ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সোমবার ৮ জুন রাত ১২টা থেকে ২২ জুন পর্যন্ত অর্থাৎ আগামী দুই সপ্তাহের জন্য কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হচ্ছে। এ ১৪ দিনের কঠোরতায় করোনার প্রাদুর্ভাব না কমলে প্রয়োজনানুসারে লকডাউনের সময় আরও বাড়তে পারে বলে ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন।

‘রেড জোন’ হিসাবে চিহ্নিত এলাকাগুলো সম্পূর্ণ অবরুদ্ধ থাকবে। প্রয়োজনে লকডাউনকৃত এলাকার নিম্ন আয়ের মানুষকে সরকারিভাবে খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা দেয়া হবে। তিনি আরও বলেন, করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি কমাতে প্রশাসনের প্রচেষ্টার কোন কমতি নেই। দরকার হলে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। জরুরি কাজের সাথে জড়িতরা ‘রেড জোন’ এ অনুমতি সাপেক্ষে অতি সীমিত আকারে চলাচল করতে পারবেন।

ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন, লকডাউন বিষয়ে শীঘ্রই বিস্তারিত নির্দেশনা জারি করা হবে।

প্রসঙ্গত, কক্সবাজার উখিয়া উপজেলা করোনা ভাইরাস সংক্রামণে ৩য় স্থানে রয়েছে। উখিয়া উপজেলায় গত ৪ জুন পর্যন্ত ১৩৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: লকডাউন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − 8 =

আরও পড়ুন