রাবিপ্রবি’তে শ্রেণী কার্যক্রম চালুর দাবিতে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি পেশ

r

রাঙামাটি প্রতিনিধি:
রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষ (২০১৪- ২০১৫) শ্রেণী কার্যক্রম দ্রুত শুরু করার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। রবিবার সকালে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালযের সামনে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানবন্ধনে ক্ষোভের সাথে বলেন, আমরা ছাত্র, আমাদের শ্রেণী কক্ষে থাকার কথা ছিলো। কিন্তু বাস্তবতা আমাদের রাস্তায় নামিয়ে এনেছে। যেখানে শ্রেণী কক্ষে বসে আমাদের লেখাপড়া হওয়ার কথা সেখানে আজ শ্রেণী কক্ষে আমাদের কোন ঠাঁই নাই। রাস্তায় নেমে আমাদের আন্দোলন করতে হচ্ছে। আমরা বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে ভর্তি পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাই। গত জুলাই মাস থেকে আমাদের ক্লাস শুরু হওয়ার কথা থাকলেও আমাদের ক্লাস শুরু হচ্ছে না।

আমাদের সাথে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের প্রথম সেমিস্টার পরিক্ষা শেষে সেমিস্টারের ক্লাস চলছে। অথচ আমাদের এখনও কোন গতি নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসে যোগাযোগ করলে নানারকম অজুহাত দেখিয়ে তারা আমাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করছে। ইতোমধ্যে ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরিক্ষার কার্যক্রম শেষ হয়ে গেছে।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আমরা আপনার সন্তানতুল্য। আপনি এ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন। আপনার চোখের সামনে আমাদের ৭৩জন শিক্ষার্থীর জীবন ধ্বংশের দিকে। আমরা জানি একমাত্র আপনি এ সমস্যার সমাধান করতে পারেন।’

রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রাবিপ্রবি) ছাত্র আন্দোলন সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক মো শামছুজম্মান বাপ্পি বলেন, ‘আমরা ছাত্র নাকি আন্দোলনকারী তা আমরা নিজেরা জানি না। এ স্বাধীন দেশে শিক্ষা কার্যক্রম চালু করার জন্য আমাদের আন্দোলন করতে হচ্ছে।’

আহবায়ক শামছুজম্মান বাপ্পি মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের প্রতি আক্ষেপ ঝেড়ে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে চক্রান্তকারীদের কোন ধরণের চক্রান্ত না করে শ্রেণী কার্যক্রম চালুর দাবী জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) প্রাদানেন্দু বিকাশ চাকমাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘হয় শ্রেণী কার্যক্রম চালু করুন না হয় পদত্যাগ পত্র জমা দিন।’ আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে শ্রেণী কার্যক্রম চালু না হলে ১৬ অক্টোবর থেকে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারী দেন এ ছাত্র।

এসময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইমাম হোসেন ইমন, মঈন উদ্দীন, রিদওয়ান, মীরাজুল হাসান, সাম্য খান, হুমায়ন কবির, জহিরুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি পেশ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − 1 =

আরও পড়ুন