রামগড়ে মোবাইল ফোন চোর গ্যাংয়ের সদস্য আটক

fec-image

খাগড়াছড়ির রামগড়ে সংঘবদ্ধ মোবাইল চোর গ্যাংয়ের এক সদস্যকে হাতেনাতে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। রবিবার (২৯ আগস্ট) রামগড় বাজারে এই ঘটনা ঘটে। রবিবারের সাপ্তাহিক এ হাটে সাংবাদিক, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পেশাজীবির পকেটমার করে প্রায় ১০টি মোবাইল সেট ও নগদ ১৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় ঐ গ্যাং এর সদস্যরা। আটক পকেটমার গ্যাংয়ের সদস্য মো. ইউনুস (৩০) কুমিল্লা জেলার কান্দিরপাড় থানার মালাই ভাঙ্গারা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ ইউসুফের ছেলে। সে একজন পেশাদার মোবাইল চোর।

রবি ও বুধবার সাপ্তাহিক হাটবারে রামগড় পৌরসভার প্রাণকেন্দ্রের রামগড় বাজারে হানা দেয় সংঘবদ্ধ মোবাইল চোর গ্যাং। ৬-৭ জনের এ গ্যাংয়ের সদস্যরা হাটে কেনাকাটার জন্য আসা মানুষের পকেট থেকে কৌশলে মোবাইল ফোন হাতিয়ে নেয়। তারা পকেটমার করে টাকা পয়সাও হাতিয়ে নিয় যায়। প্রত্যেক হাটের দিনই ৮-১০টি মোবাইল ফোন খোয়া যায় ক্রেতাদের।

অন্যান্য হাটবারের মত রবিবার (২৯ আগস্ট) ঐ গ্যাং এর সদস্যরা হানা দেয় রামগড় বাজারে। বিশেষ করে সবজী বাজার, মাছ বাজারে সকাল হতে দুপুরের মধ্যে সাংবাদিক, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পেশাজীবির ৮-৯ জনের পকেট থেকে মোবাইল ফোন হাতিয়ে নেয় তারা। একই সময়ে বাবুল নামে এক ব্যক্তির পকেট থেকে ১৩ হাজার ৫০০ টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে শাহীন ক্রোকারিজ নামে একটি দোকানে ক্রেতা সেজে হানা দেয় গ্যাংয়ের সদস্য ইউসুফ। দোকানের মালিকের ব্যস্ততার সুযোগে সে ক্যাশ বক্সের ওপর রাখা ২৭ হাজার টাকা দামের স্মার্ট ফোনটি চোখের ফলকে হাতিয়ে নিয়ে চম্পট দেয় ইউসুফ। পরে দোকানের মালিক কাজী শাহীন উদ্দিন সুমনের মোবাইল খোয়া যাওয়ার ব্যাপার নজরে এলে তিনি সন্দেহভাজন হিসেবে খুঁজতে বের হন ইউসুফকে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাজারের সিএনজি স্টেশনে তাকে ধরে উত্তম মধ্যম দিলে সে দোকান থেকে মোবাইল চুরির কথা স্বীকার করে। তবে সে মোবাইল সেটটি তাদের গ্যাংয়ের অপর এক সদস্যের কাছে হস্তান্তর করেছে বলে জানায়। এদিকে মোবাইল চোর ধরা পড়ার কথা বাজারে ছড়িয়ে পড়লে মোবাইল খোয়ানো ব্যক্তিসহ অসংখ্য লোকজন ছুটে আসে। ক্ষুব্ধ লোকজন তাকে পিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

রামগড় থানার ওসি (তদন্ত) রাজীব কর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটকৃত ইউসুফ একজন পেশাদার চোর। সে একটি সংঘবদ্ধ চোর গ্রুপের সদস্য। তার কাছে থেকে গত সপ্তাহে রামগড় বাজারে জনৈক ব্যক্তির কাছ থেকে চুরি করা একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে সব স্বীকার করেছে।

ওসি তদন্ত জানান, তার নামে কক্সবাজারের চকরিয়া ও চট্টগ্রামের বায়োজিত থানায় মাদক দ্রব্য আইনে দুটি মামলা রয়েছে। তিনি বলেন, রামগড় থানায় চুরির মামলা রুজু করে তাকে খাগড়াছড়ি আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − 12 =

আরও পড়ুন