রামগড়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন কাদের বীরোত্তমের সমাধির উন্নয়নে পৌর কাউন্সিলর

fec-image

রামগড়ে কেন্দ্রীয় কবরস্থানে অবস্থিত মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আফতাবুল কাদের বীর উত্তম এর সমাধির উন্নয়ন কাজ করলেন পৌর কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র আহসান উল্লাহ। তিনি একান্ত ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এ উন্নয়ন কাজ করেন।

১৯৭১ সালের ২৭ এপ্রিল মহালছড়িতে পাকবাহিনী ও তাদের সহযোগীদের সাথে এক প্রচন্ড সন্মুখ যুদ্ধে অকুতোভয় তরুণ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আফতাবুল কাদের বীর উত্তম শাহাদাৎ বরণ করেন। সহযোদ্ধারা তাঁর মরদেহ রামগড়ের কেন্দ্রীয় কবরস্থানে সমাহিত করেন। পরবর্তীতে রামগড়ের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সুলতান আহমদের উদ্যোগে শহীদ মুক্তিযোদ্ধার কবরটি সংরক্ষণের জন্য পাকা করা হয়। ১৯৯৭ সালে তৎকালীন খাগড়াছড়ি স্থানীয় সরকার পরিষদের উদ্যোগে শহীদের এ কবরটির নতুনভাবে উন্নয়ন কাজ করা হয়। কিন্তু এ শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা বীর উত্তম খেতাব প্রাপ্ত হলেও তাঁর কবরের পাকা প্রাচীরে স্থাপন করা শিলাবিন্যাসে নামের সাথে ‘বীর উত্তম ‘ খেতাব লেখা ছিল না।

দীর্ঘদিন যাবৎ বীর শহীদের সমাধিটির সংস্কারও কেউ করেনি। এতে অনেকটা শ্রীহীন হয়ে পড়েছিল এটি। স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন লাভলুর অনুরোধে বীর শহীদের হতশ্রী সমাধির উন্নয়নের উদ্যোগ নেন রামগড় পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র -১ আহসান উল্লাহ। তিনি তার একান্ত ব্যক্তিগত তহবিল থেকে বিজয়ের মাস এ ডিসেম্বরের প্রথমার্ধেই শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধার সমাধি প্রাচীরে ‘বীর উত্তম’ খেতাবযুক্ত নতুন শিলাবিন্যাস স্থাপন করেন। এছাড়া সমাধির শ্রীবর্ধক রংয়ের কাজও করা হয়। পূর্বের শিলাবিন্যাসে খেতাব লেখা ছিল না বিধায় এ শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা যে বীর উত্তম খেতাব প্রাপ্ত তা অনেকের কাছেই অজানা ছিল।

এদিকে, দেশের শ্রেষ্ঠ সূর্য সন্তান শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আফতাবুল কাদের বীর উত্তম এর সমাধির উন্নয়ন করায় পৌর কাউন্সিলর আহসান উল্লাহকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন শহীদের ভাই প্রাক্তন হাই কমিশনার মোঃ আফসারুল কাদের, মোঃ আকরামুল কাদের, শহীদের আমেরিকা প্রবাসি স্বজন মোর্শেদা হুদা ও শামসুল হুদা।

এছাড়া রামগড় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মফিজুর রহমানসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানগণ পৌর কাউন্সিলরকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: মুক্তিযোদ্ধা, রামগড়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen + 7 =

আরও পড়ুন