রামগড় উপজেলা ও পৌর বিএনপির কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ

fec-image

খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভূইয়ার বিরুদ্ধে দলীয় স্বেচ্ছাচারিতা, সংগঠনের নিয়মনীতি লঙ্ঘনসহ পকেট কমিটি গঠনের অভিযোগ এনেছেন তার ভাতিজা জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহদুল সিলাম ভুইয়া ফরহাদ।

শনিবার (২১ মে) রামগড়ে পৈতিৃক বাসায় আয়োজিত সংবাদ সন্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। তিনি আরো অভিযোগ করেন, পারিবারিক দ্বন্দ্বকে রাজনীতিতে যুক্ত করে চাচা ওয়াদুদ ভূইয়া তাকে দল থেকে মাইনাস করার চেষ্টা করছেন। তারই অংশ হিসেবে রামগড় উপজেলা ও পৌর বিএনপির পুরাতন কমিটি বিলুপ্ত করে অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে তার আস্থাভাজন লোকজনদের দিয়ে নতুন পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে। অবিলম্বে এ পকেট কমিটি বাতিল করা না হলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ারও হুমকি দেন তিনি।

রামগড় উপজেলা ও পৌর বিএনপির কমিটি গঠনের প্রতিবাদে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উস্থিত ছিলেন, জেলা বি্এনপিরসহ সভাপতি ও সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভূইয়ার তালতো ভাই মো. মোজাম্মেল হোসেন চৌধুরি, রামগড় বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি ও ওয়াদুদ ভূইয়ার অপর তালতো ভাই মোতাহার হোসেন মিলন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি মজিবুল হক মজু, ত্রাণ ও পুর্নবাসন সম্পাদক আবুল কাশেমসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।

সংবাদ সম্মেলনে শহিদুল ইসলাম ভূইয়া ফরহহাদ আরো বলেন, ২০১৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর সর্বশেষ সম্মেলনের মাধ্যমে রামগড় উপজেলা ও পৌর কমিটি গঠন করা হয়েছিল, যা এখনো বহাল রয়েছে। অথচ কমিটির কাউকে অবগত না করে কিছু সংখ্যক লোকজনকে খাগড়াছড়িতে সৌজন্য সাক্ষাতের কথা বলে ডেকে নিয়ে অগণতান্ত্রিক ও অসাংগঠনিকভাবে কাউন্সিলের নামে গত ১৯ মে ওয়াদুদ ভূইয়ার পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ইউনিয়ন ও পৌর ওয়ার্ড কমিটিগুলোর প্রত্যক্ষ ভোটে উপজেলা ও পৌর কমিটি গঠন করার নিয়ম থাকলেও ওয়াদুদ ভূইয়া সাংগঠনিক নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে দলীয় গঠনতন্ত্রকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে স্বৈরাচারী কাদায় নিজের খেয়াল-খুশি মতো এ পকেট কমিটি গঠন করা হয়। তার স্বৈরাচারি ও স্বেচ্ছাচারিতার কারণে খাগড়াছড়িতে বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা দিনদিন দুর্বল হয়ে পড়ছে। এসব সার্বিক বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগ আমলে নিয়ে কেন্দ্রীয়ভবে অভিযোগের তদন্ত করে রিপোর্টও জমা হয়েছে। তিনি বলেন, এখন আমরা দলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরচারি কায়দায় গঠিত রামগড় উপজেলা ও পৌর কমিটি অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, অন্যথায় কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবেন তারা।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (১৯ মে) রামগড় উপজেলা কমিটিতে হাফেজ আহাম্মদ ভূইয়াকে সভাপতি, নুর হোসেন নুরুকে সাধারণ সম্পাদক ও শেফায়েত উল্যাহকে সাংগঠনিক সম্পাদক এবং পৌর কমিটিতে জসীম উদ্দিনকে সভাপতি, মো. আলা উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক ও সাফায়েত মোর্শেদ ভূঁইয়া (মিঠু)কে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট দুটি কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি, রামগড়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 2 =

আরও পড়ুন