রামুতে দু’ট্রাক চাল জব্দ: অভিযুক্ত কর্মকর্তা সুজিত বিহারীকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন

ramu pic 23.08

নিজস্ব প্রতিনিধি:
রামু উপজেলা খাদ্য গুদামে খাদ্যশষ্য সংগ্রহে কেলেংকারির ঘটনায় জড়িত খাদ্য বিভাগের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কালোবাজারীদের শাস্তি প্রদান এবং স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে খাদ্যশষ্য ক্রয়ের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (২৩ আগস্ট) সকাল দশটায় রামু চৌমুহনী স্টেশনে উপজেলা পর্যায়ে মিলারদের মাধ্যমে চাল সংগ্রহ কার্যক্রমে সরকারের দেওয়া ভর্তুকি থেকে বঞ্চিত কৃষকরা এ সমাবেশ আয়োজন করে।

এতে মুঠোফোনে কৃষকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, রামু-কক্সবাজার আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। তিনি বলেন, চাল কেলেংকারির ঘটনায় জড়িতরা কোনভাবেই ছাড় পাবে না। যারা কৃষকদের সাথে প্রতারণা করেছে তাদের কঠোর শাস্তি হবে।

মানববন্ধন সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ‘দেশ বাঁচাও, কৃষক বাঁচাও’ এ শ্লোগান নিয়ে আয়োজিত এ সমাবেশের উদ্যোক্তা মুক্তিযোদ্ধা মোজাফ্ফর আহমদ।

এছাড়াও রামু বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদকক শামসুল আলম, সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজন রামু শাখার সভাপতি মাষ্টার মোহাম্মদ আলম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, স্কীম ম্যানেজার ও কৃষক আবদুর রহিম, সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম কবির, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা রমেশ বড়ুয়া, রামুর প্রতিনিধিত্বশীল নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সমস্বর এর সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা, রামু উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি নুরুল কবির হেলাল, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ও সাংসদ কমলের ব্যক্তিগত সহকারি মো. আবু বক্কর, রামু উপজেলা কৃষকলীগের সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, যুগ্ম-আহবায়ক জুয়েল ধর, কৃষকলীগ নেতা শহিদুল ইসলাম, উপজেলা বাস্তুহারালীগের সভাপতি নুরুল আলম জিকু উপজেলা প্রজন্মলীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেন বাবলা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, রামু উপজেলায় খাদ্য গুদামে জেলা প্রশাসনের অভিযানে ৪৩ মেট্রিক টন চাল সহ ২টি ট্রাক জব্দ করা হলেও এ ঘটনায় জড়িত উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দুর্নীতিবাজ সুজিত বিহারী সেন সহ খাদ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা, কালোবাজারি সিন্ডিকেট সদস্য এবং অনিয়মে সহায়তাকারি মিলারদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। অথচ চাল সংগ্রহে এতবড় অনিয়মের ফলে রামুর হাজার হাজার কৃষক বুরো মৌসুমে ধান-চালের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুজিত বিহারী সেন বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এতে কৃষকদের ক্ষোভের মাত্রা আরো বেড়েছে। এ ধরণের হাস্যকর মামলা দুর্নীতিবাজদের রক্ষার কৌশল ছাড়া আর কিছুই নয়।

সমাবেশে উপজেলার শত শত কৃষক বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 1 =

আরও পড়ুন