রামুতে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্কে খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন

fec-image

‘দুর্নীতিবিরোধী শপথের প্রদীপ্ত স্বাক্ষরে নতুন সূর্যশিখা জ্বলবেই’ এ প্রতিপাদ্যে রামুতে অনুষ্ঠিত হয়েছে, মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা।

সোমবার (১ জুলাই) সকালে রামু উপজেলা পরিষদের বাঁকখালী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব।

দুর্নীতিবিরোধী চেতনা সৃষ্টি করার লক্ষে অনুষ্ঠিত এ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং বাঁকখালী উচ্চ বিদ্যালয় রানার্স আপ হয়েছে। শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়েছে, রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বক্তা কৌবিদ বড়ুয়া।

প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলামসহ অতিথিরা বিজয়ী ও বিজিত দলের হাতে পুরস্কারের সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, দুর্নীতি দমন কমিশন কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক অনিক বড়ুয়া।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা প্রকৌশলী মঞ্জুর হাছান ভূঁইয়া, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি’র সভাপতি মাস্টার মোহাম্মদ আলম, রামু প্রেসক্লাব সভাপতি নীতিশ বড়ুয়া। স্বাগত বক্তৃতা করেন, দুর্নীতি দমন কমিশন কক্সবাজারের উপ সহকারী পরিচালক পার্থ চন্দ্র পাল।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলাম বলেন, আমাদের চিন্তার জায়গা, চেতনার জায়গা থেকে সৎ হতে হবে। ভালো চিন্তাকে ধারণ করতে হবে। ভালো খারাপের মানদন্ড তৈরি করতে হবে নিজেরকে। খারাপকে ঘৃণা করার চেতনা আমাদের মাঝে থাকতে হবে। এটা যখন আমরা ধারণ করতে না পারবো, আমাদের সমাজের খারাপ মানুষকে বাহবা দেবো, তখন সমাজে ভালো মানুষ হবার প্রেরণা থাকবে না। তখন এই সমাজ চিন্তা করবে, ভালো মানুষের দাম নেই।

বিতার্কিক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ইউএনও রাশেদুল ইসলাম বলেন, তোমাদের ভেতরে যে সুপ্ত চিন্তা রয়েছে। সেই চিন্তাকে মুছে দিও না। সেই চিন্তাকে ধারণ করে রেখো। ভিতরের যে সুকুমার বৃত্তিকে লালন করতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠার নেশায় মানুষকে দুর্নীতির দিকে নিয়ে যায়। কিভাবে খুব দ্রুত জীবনে প্রতিষ্ঠা পাওয়া যাবে, দ্রুত বড় লোক হওয়া যাবে। সেই চিন্তাই বেশি কাজ করে। আমরা খারাপকে খারাপ হিসেবে চিন্তা করি না। দুর্নীতি হচ্ছে যার যে কাজ বা দায়িত্ব, তার সে দায়িত্ব পালন না করা। সেটাই হচ্ছে দুর্নীতি। দুর্নীতিকে দূর করতে হলে, মনের ভিতর থেকে ভালোবাসা জাগ্রত করতে হবে। তা না হলে সমাজ থেকে দুর্নীতি দূর হবে না।

রামু উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক খালেদ শহীদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন, রামু উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য ও রাজারকুল আজিজুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা মোহছেন শরীফ এবং নাইক্ষ্যংছড়ি হাজি এম এ কালাম সরকারি কলেজের প্রভাষক নীলোৎপল বড়ুয়া।

সোমবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় রাউন্ডে ‘অভাব নয়, কেবল সীমাহীন লোভ দুর্নীতির প্রধান কারণ’ বিষয়ে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে শেখ হাসিনা জোয়ারিয়ানালা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পক্ষ দলে, রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় বিপক্ষ দলে এবং রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পক্ষ দলে, বাঁকখালী উচ্চ বিদ্যালয় বিপক্ষ দলে অংশ নেয়। দুপুর ১টায় অনুষ্ঠিত হয় ফাইনাল রাউন্ড বিতর্ক প্রতিযোগিতা। ‘যে কোন রাষ্ট্রের উন্নয়নের পথে দুর্নীতি প্রধান অন্তরায়’ বিতর্ক বিষয়ে অনুষ্ঠিত চুড়ান্ত পর্বের দুর্নীতিবিরোধী এ প্রতিযোগিতায় পক্ষ দল বাঁকখালী উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বিপক্ষ দল রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়।

রামু উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মাস্টার মোহাম্মদ আলম এ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় মডারেটর এবং নাইক্ষ্যংছড়ি হাজি এম এ কালাম সরকারি কলেজের ইংরেজি প্রভাষক নীলোৎপল বড়ুয়া, রামু সরকারি কলেজের শিক্ষক মানসী বড়ুয়া, কক্সবাজার উইজডম গ্লোবাল স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. মাহবুবুল আলম বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন। এতে সময়রক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন, রামু উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি সুবীর বড়ুয়া বুলু।

সৎ থাকতে ও সৎ থাকার চেতনা সৃষ্টি করা এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের অবস্থান থাকার লক্ষে দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয় কক্সবাজারের আয়োজনে এবং রামু উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি’র বাস্তবায়নে অনুষ্ঠিত হয় মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় রামু উপজেলার আটটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় অংশ নেয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন