রামুতে দোকান কর্মচারীকে কুপিয়ে জখম

fec-image

রামুতে দোকান কর্মচারীকে ফিল্মী স্টাইলে কুপিয়ে জখম করেছে সংঘবদ্ধ চক্র। দোকানের সিসিটিভি ফুটেজে ধারণকৃত হামলার একটি ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) রাতে রামু উপজেলা পরিষদ গেইটস্থ বেসিক কম্পিউটার এ তুচ্ছ ঘটনার জেরে পরিকল্পিতভাবে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় কিশোর গ্যাং এর এমন বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় আহত দোকান কর্মচারী আকিবকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা। তিনি হামলায় জড়িতদের আটক করার জন্য তাৎক্ষণিক অভিযানও চালান।

বেসিক কম্পিউটার এর মালিক আকতার কামাল জানান, রাত ৮টার দিকে রামুর পশ্চিম মেরংলোয়া গ্রামের সাঈদ, আকিবের নেতৃত্বে ৮ থেকে ১০ জন কিশোর আকস্মিকভাবে তার দোকানের ভিতরে প্রবেশ করে কর্মচারী আরিয়ানকে ছুরিকাঘাত শুরু করে। এসময় তিনি দোকানে থাকলেও এমন বর্বরতায় হতভম্ব হয়ে পড়েন। পরে হামলাকারীরা আরিয়ানকে উপূর্যপরি ছুরিকাঘাত, শারীরিকভাবে মারধর ও দোকান ভাঙ্গচুর করে পালিয়ে যায়।

আহত দোকান কর্মচারী আরিয়ান (১৮) রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের পশ্চিম মনিরঝিল দরগাহপাড়া এলাকার মুফিদুল আলমের ছেলে। তিনি জানান- বৃহস্পতিবার বিকালে সাঈদ নামের ছেলেটি দোকানে গিয়ে ভোটার ফরম কিনতে চান। এসময় ফরমের মূল্য নিয়ে তার সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাঈদ তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন। এরই জের ধরে রাতে সাঈদ, আকিবসহ ৮ থেকে ১০ ছেলে দোকানে গিয়ে তার মাথায় একাধিকস্থানে ছুরিকাঘাত ও শারীরিকভাবে মারধর করে।

জানা গেছে- হামলায় জড়িতদের মধ্যে ২ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন- রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের পশ্চিম মেরংলোয়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে সাঈদ এবং গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আকিব। হামলার সময় হামলাকারীদের সবাই মাস্ক পরিহিত ছিলেন।

রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা শুক্রবার (১০ জুন) সকালে জানিয়েছেন, ‘হামলার পরপরই তিনি অভিযুক্ত সাঈদকে ধরার জন্য তার বাড়িতে গিয়েছিলাম। আহত আরিয়ানকে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। এখন সাঈদ ও তার বাবা ঘটনার ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চাওয়ার জন্য আসতে চাচ্ছে। বর্তমানে আমি কক্সবাজারে মন্ত্রী পরিষদ সচিবের একটি অনুষ্ঠানে রয়েছি। পরে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। জড়িতদের কোনভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

এ ঘটনায় আহত আরিয়ানের পরিবার থানায় মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুপিয়ে জখম, রামু
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 2 =

আরও পড়ুন